ইউক্রেন সীমান্তে সংঘর্ষে ১৫ সৈন্য নিহতইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় সীমান্তে হামলা পাল্টা হামলায় ১৫ সৈন্য নিহত হয়েছে।
রাশিয়ার প্রতি সীমান্ত থেকে সৈন্য প্রত্যাহারে ন্যাটো প্রধান অ্যান্ডার্স ফগ রাশমুসেনের আহ্বানের পর নতুন করে এ সংঘর্ষ দেখা দিল।
এদিকে খাদ্যের ওপর রাশিয়ার নিষেধাজ্ঞার তীব্র সমালোচনা করেছে পশ্চিমা দেশগুলো। ইউক্রেনে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের মদদ দেয়ার অভিযোগে পশ্চিমাদেশগুলো মস্কোর ওপর অবরোধ আরোপের জবাবে রাশিয়াও কিছু খাদ্য আমদানির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে। এছাড়া পশ্চিমা দেশগুলো আশংকা করছে রাশিয়া মানবিক মিশনের আড়ালে সীমান্তে সৈন্য পাঠানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে।
রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট দিমির পুতিন পূর্ব ইউক্রেন পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্য গত শুক্রবার জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠকে বিশেষ করে ওই এলাকার মানবিক বিপর্যয় নিয়ে আলোচনা হয়।
ইউক্রেনের সেনাবাহিনী বলছে, রুশপš’ী বিদ্রোহীদের সঙ্গে তিনদিনের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের মধ্যে গত ২৪ ঘন্টায় সাত সৈন্য ও আট সীমান্তরক্ষী প্রাণ হারিয়েছে। ফলে সরকারি বাহিনীর কিছু ইউনিটকে পিছু হটতে হয়েছে।
এছাড়া প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, তারা বিদ্রোহীদের মূল ঘাঁটি দনেৎস্কে ভারী গোলার বিস্ফোরণের শব্দ শুনেছেন। শহরটির মূল কেন্দ্র এখন যুদ্ধক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সংঘর্ষে তিন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে। কিš‘ সরকারি বাহিনীর তীব্র অভিযান সত্ত্বেও বিদ্রোহীদের পিছু হটানো যায়নি।
এদিকে স্থানীয় লোকজন ওই এলাকার মানবিক বিপর্যয় নিয়ে হুঁশিয়ারি উ”চারণ করেছে। কারণ অনেক এলাকায় দিনের পর দিন পানি নেই, বিদ্যুৎ নেই। জ্বালানি ও খাবারও দ্রুত ফুরিয়ে আসছে।
জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন এক বিবৃতিতে বলেছেন, ইউক্রেনে ত্রাণ প্রচেষ্টা জোরদারে বিশ্ব সংস্থা প্রস্তুত।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য