পাকিস্তানে পিএটি সমর্থকদেরডা.তাহিরুল কাদরির নেতৃত্বাধীন পাকিস্তান আওয়ামী তেহরিক বা পিএটি’র সমর্থকদের সঙ্গে গতকাল শনিবার পুলিশের সংঘর্ষে দলটির এক কর্মী নিহত এবং ছয় নারী কর্মী আহত হয়েছে। সংঘর্ষে তিন পুলিশ আহত হয়েছে এবং পুলিশের তিন গাড়িতে আগুন দেয়া হয়েছে।
পাঞ্জাব প্রদেশের গুজরানওয়ালা জেলার কামোকি শহরে এ সংঘর্ষ হয়েছে বলে পাকিস্তানের সংবাদ মাধ্যমগুলো খবর দিয়েছে। পিটিএ’র আহুত কথিত ‘শহীদ দিবস’ শোভাযাত্রার আগের দিন এ সংঘর্ষ হলো। জুনের মাসের ১৭ তারিখে পুলিশের হামলায় নিহত সমর্থকদের স্মরণে এ দিবস পালনের ডাক দিয়েছে পিএটি। এদিকে, গত শুক্রবার লাহোরের মডেল টাউনে পুলিশের সঙ্গে লাঠিসোটায় সজ্জিত পিএটি কর্মীদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। মিনহাজুল কোরআন ইন্টারন্যাশনালের প্রধান দফতরে যাওয়ার পথ কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে এবং বড় বড় শিপিং কন্টেইনার ফেলে বন্ধ করে দিয়েছিল পুলিশ। এ এলাকায় ডা. কাদরির বাসভবনও অবস্থিত। পিএটি’র সমর্থকরা এ সব সরিয়ে মিনহাজুল কোরআন ইন্টারন্যাশনালের দফতরে যাওয়ার চেষ্টা করলে সংঘর্ষ শুরু হয়। সংঘর্ষে অন্তত সাত পুলিশ এবং চার পিএটি সমর্থক আহত হয়েছে।
সংঘষের্র মুখে পুলিশ পিছু হটতে বাধ্য হয়। পিএটি সমর্থকরা কাঁটাতারের বেড়া উপড়ে ফেলে এবং ক্রেন যোগাড় করে শিপিং কন্টেইনারগুলো সরানোর কাজে লেগে যায়।
এ ছাড়া, পাঞ্জাবের অন্যান্য শহরেও পুলিশের সঙ্গে পিএটি’র সমর্থকদের সংঘষের্র খবর পাওয়া গেছে। কায়েদাবাদে বিক্ষোভকারীরা একটি থানায় হামলা করে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে এবং মাল খানা লুট করেছে। এ ছাড়া, তারা থানায় আটক ১১ আসামিকে ভেগে যেতে সহায়তা করেছে

 

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য