04 Americanচীনের ভয়ে ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা জোরদার করার পরিকল্পনা নিয়েছে আমেরিকা। এ জন্য দেশটির প্রাতিরক্ষা বিভাগ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা খাতে আরো সাড়ে ৪০০ কোটি বাড়তি ব্যয় করার চিন্তা করছে। এ পরকিল্পনার আওতায় মার্কিন সেনা সদরদপ্তর পেন্টাগণ আগামী পাঁচ বছরে সাড়ে ৪০০ কোটি ডলার অর্থ চাইবে এবং ২০১৫ সালের বাজেটেই তা বরাদ্দ দেয়ার অনুরোধ জানানো হবে।
আমেরিকায় সামরিক খাত ও অন্য অস্ত্রখাতে ব্যয় কাটছাঁট করা হলেও ক্ষেপণাস্ত্র খাতে ব্যয় বাড়ানো হচ্ছে। নতুন পরিকল্পনার আওতায় সাড়ে ৪০০ কোটি ডলারের মধ্যে ১০০ কোটি ডলার ব্যয় করা হবে নতুন ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র সনাক্তকারী রাডারের পেছনে যা আলাস্কায় বসানো হবে। এছাড়া, ৫৬ কোটি ডলার বরাদ্দ দেয়া হবে নতুন ধরনের ইন্টারসেপ্টরের জন্য যদিও এর কয়েকটি পরীক্ষা ব্যর্থ হয়েছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মার্কিন কংগ্রেসের দু’টি সূত্র থেকে এ খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া, অলাভজনক প্রতিষ্ঠান ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা এডভোকেসি জোটের প্রতিষ্ঠাতা রিকি এলিসনও এ কথা নিশ্চিত করেছেন। চীনের নতুন সাবমেরিনগুলো আমেরিকার আলাস্কা ও হাওয়াই অঙ্গরাজ্যে পরমাণু হামলা চালাতে সক্ষম -এমন খবর বের হওয়ার পর পেন্টাগণ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা জোরদার করার পরিকল্পনা নিল।
হোয়াইট হাউস আগামী ৪ মার্চ কংগ্রেসের কাছে ২০১৫ সালের মার্কিন জাতীয় বাজেট পাঠানোর পরিকল্পনা করছে। পেন্টাগণ গত কয়েক দশক ধরে ক্ষেপণাস্ত্র খাতে বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যয় করেছে। এর মধ্যে রেইথিয়ন কোম্পানি ‘কিল ভেহিক্যাল’ নামে একটি ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি ও উন্নয়নের জন্য শত শত কোটি ডলার খরচ করেছে। এ ক্ষেপণাস্ত্র শত্র“র ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংসের কাজে ব্যবহার করা হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য