28_FNS_N_08-02-14প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জনসমর্থন না থাকায় ভোট ঠেকাতে বিএনপি-জামায়াতের সব আন্দোলনই ব্যর্থ হয়েছে। গতকাল শনিবার সকালে রাজশাহী সারদা পুলিশ অ্যাকাডেমিতে শিক্ষানবীশ সহকারী পুলিশ সুপারদের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, গত ৫ জানুয়ারি নির্বাচন বানচাল করতে বিএনপি ও তাদের দেশি-বিদেশি প্রভু, লবিইস্ট, সুবিধাভোগী গোষ্ঠী এবং পেশাদার বুদ্ধিজীবীদের নানামুখী চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে নির্বাচনে অংশ নিয়েছে। গণতন্ত্র ও সংবিধান সমুন্নত রেখেছে। ‘উন্নয়নের ধারা রক্ষা করে মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ সমুন্নত রাখতে’ জনগণ আবারো আওয়ামী লীগের ওপর আস্তা রেখেছে বলে মন্তব্য করেন দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, গণতন্ত্র ও মুক্তিযদ্ধের চেতনাবিরোধী, সাম্প্রদায়িক বিএনপি-জামায়াত ও তাদের দোসররা দেশকে অস্থিতিশীল করার লক্ষ্যে সহিংসতা চালিয়েছে। পেট্রোল বোমা মেরে মানুষকে পুড়িয়েছে মেরেছে। যানবাহন ও রেললাইন ধ্বংস করেছে। জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে। গত এক বছরে ‘বিএনপি জামায়াতের তাণ্ডবে’ ১৫ জন পুলিশ সদস্য মারা গেছেন। প্রায় ৩ হাজার সদস্য আহত হয়েছেন বলে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

“নির্বাচনের আগে ও পরে বিএনপি-জামায়াত শিবিরের সহিংসতা দমনে পুলিশসহ যৌথ বাহিনী অত্যন্ত তৎপর ছিল। তারপরও এই সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িঘর ও মন্দির আক্রমণ করেছে। এই জঙ্গি  সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় আনতে সরকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।”

বিএনপিবিহীন নির্বাচনের মধ্য দিয়ে টানা দ্বিতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আসা শেখ হাসিনা বলেন, তার সরকার ‘উন্নয়নের দ্বিতীয় ধাপ’ বাস্তবায়নে কাজ শুরু করেছে।

সমাপনী কুচকাওয়াজে তিনি বলেন, দেশে আইনের শাসন ও ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে সরকার প্রতিশ্র“তিবদ্ধ। এক্ষেত্রে পুলিশ সদস্যদের পেশাগত দক্ষতা, নিরপেক্ষতা, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার পাশাপাশি জনগণের প্রতি ‘সুশীল’ আচরণ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মনে রাখতে হবে আপনাদের কাছে বিপদগ্রস্ত মানুষ আসে সাহায্যের আশায়। থানা, তদন্ত কেন্দ্রে, ফাঁড়ি, পুলিশবক্স এবং পুলিশের অন্যান্য দপ্তরে আসা মানুষ যেন হয়রানি বা দুর্ভোগের শিকার না হয়, তা নিশ্চিত করে সেবা দিতে হবে।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী ৩১তম বিসিএস ব্যাচের ১৭৬জন শিক্ষানবীশ সহকারী পুলিশ সুপারের কুচকাওয়াজে অভিবাদন গ্রহণ, প্যারেড পরিদর্শন এবং প্রশিক্ষণে বিভিন্ন বিষয়ে কৃতীত্ব দেখানো কর্মকর্তাদের মধ্যে পদক প্রদান এবং পুলিশ অ্যাকাডেমির অফিসার্স মেস প্রাঙ্গণে বৃক্ষ রোপণ করেন।

স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, পুলিশের মহা পরিদর্শক হাসান মামুদ খন্দকার ও সারদা পুলিশ একাডেমির প্রিন্সিপাল নাঈম আহম্মেদসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী বিকেল সোয়া ৪টায় সরদহ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে একযোগে বেশ কয়েকটি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিফলক উন্মোচন করবেন। এছাড়া রাজনৈতিক ও সাম্প্রদায়িক হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত ৭৭ জনের হাতে আর্থিক সহায়তার চেক তুলে দেবেন। পরে বিদ্যালয়ের মাঠে স্থানীয় আওয়ামী লীগের জনসভায় বক্তব্য দেয়ার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য