যৌন নির্যাতনে পাকিস্তান নারী ক্রিকেটারের মৃত্যুআন্তর্জাতিক ডেস্ক : পাকিস্তান ক্রিকেট ফের তোলপাড়। এক এক অল্পবয়সি নারী ক্রিকেটারের রহস্যজনক মৃত্যুতে ফিরল বব উলমারের স্মৃতি। ২০০৭ বিশ্বকাপের সময় জামাইকার হোটেলে যেভাবে উলমারের মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছিল, ঠিক তেমনই হালিমা রফিক নামে ১৭ বছরের নারী পাক ক্রিকেটারের লাশ পাওয়া গেছে মুলতানে। এই হালিমা ক দিন আগেই চাঞ্চল্যকর এক অভিযোগ এনেছিলেন।

মৃত এই নারী ক্রিকেটারের অভিযোগ করছিলেন, মুলতান ক্রিকেট ক্লাব-এর কিছু কর্মকর্তা নারী খেলোয়াড়দের যৌন হেনস্থা করেন। দলে সুযোগ পেতে হলে ওই ক্রিকেট ক্লাবের কর্তাদের সঙ্গে অনৈতিক কাজ করতে হত বলে পাক ক্রিকেট বোডের্র কাছে অভিযোগও জানিয়েছিলেন হালিমা। পিসিবি হালিমার অভিযোগকে পাত্তাই দেয়নি। কিন্তু উলটো মুলতান ক্রিকেট ক্লাব হালিমার বিরুদ্ধে পাল্টা ক্ষতিপূরণের মামলা করে।
প্রচন্ড মানসিক হতাশায় হালিমার পরিবারের অভিযোগ বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেছে সে।

পাকিস্তানের এক সংবাদপত্রে প্রকাশ গত বছরের জুনে মৌলবি সুলতান সহ মুলতান ক্রিকেট ক্লাবের কয়েকজন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ক্যাম্প চলাকালে তাঁদের যৌন হেনস্থার অভিযোগ করেন হালিমা ও আরও চারজন মেয়ে, কিন্তু পিসিবি-র নারী শাখার ২ সদস্যের কমিটি গড়ে তড়িঘড়ি তদন্ত চালিয়ে যাবতীয় অভিযোগ খারিজ করে দেয়।

তদন্তের সময় অভিযোগকারী তিনটি মেয়ে কমিটির সামনে হাজির হয়ে বক্তব্য নথিবদ্ধ করে যৌন হেনস্থা বা দৈহিক নিপীড়নের অভিযোগ অস্বীকার করে। কিন্তু হালিমা ও আরেকটি মেয়ে হাজির হয়নি। সবকটি মেয়েকেই ২০১৩-র ২৩ অক্টোবর থেকে ৬ মাসের যে কোনও ধরনের ক্রিকেট থেকে নির্বাসন দেওয়া হোক, তদন্ত কমিটি সব শেষে এমনই সুপারিশ করে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য