গাজায় ৭ দিনের নিহত ১৭২ জনগাজা উপত্যকায় গতকাল সোমবার ইসরাইলি সামরিক অভিযানে দু’জন নিহত হয়েছে। এদের একজন পুরুষ ও অপরজন নারী। এনিয়ে গাজায় ইসরাইলের সাতদিনের সামরিক অভিযানে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৭২ জনে দাঁড়ালো।
গত রোববার ইসরাইলি বিমান হামলায় এ দু’জন মারাত্মকভাবে আহত হওয়ার পর মারা গেল। ওই দিন আরো আটজন নিহত হয়।
গত রোববার রাতে গাজা উপত্যকার দক্ষিণাঞ্চলীয় দিয়ার এল বালায় ইসরাইলি বিমান হামলায় ৬৫ বছর বয়সী এক ব্যক্তি, মিশর সীমান্তে ২০ বছর বয়সী এক তরুণ এবং খান ইউনিস শহরে আরো দু’জন নিহত হয়।
জরুরি সেবা সংস্থার মুখপাত্র আশরাফ আল-কুদ্রা জানান, গাজার উত্তরাঞ্চলীয় জাবালিয়া শহরে এক বাড়িতে হামলায় ১৪ বছর বয়সী এক কিশোর নিহত হয়।
তিনি জানান, ওই হামলার পর পরই গাজার মধ্যাঞ্চলে মাঘাজি শরণার্থী শিবিরে অপর এক হামলায় এক নারী নিহত হয়।
গাজার উত্তরাঞ্চলীয় বেইত হানুনে ইসরাইলি সামরিক অভিযানে একব্যক্তি নিহত হয়। সেখানে ইসরাইলি সামরিক বাহিনী হুঁশিয়ার করে দিয়ে বলেছে, তারা গাজায় তাদের অভিযান আরো জোরদার করবে। তারা বাসিন্দাদের গাজা ছেড়ে চলে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছে।
কুদ্রা জানান, অন্যস্থানে এর আগের একটি হামলায় অপর একব্যক্তি মারাত্মকভাবে আহত হয় এবং পরে সে মারা যায়। ফলে এনিয়ে ইসরাইলি হামলায় মোট ১৭২ জন প্রাণ হারালো। এসব হামলায় গাজায় প্রায় ১ হাজার ২৩০ জন আহত হয়।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাফায় রাজপথের মাঝখানে বন্দুকধারীদের এক ব্যক্তিকে গুলি করে হত্যা করতে দেখা যায়। ইসরাইলের সহযোগিতায় কেউ এ নির্মম হত্যাকান্ড ঘটাতে পারে বলে ধারণা করা হ”েছ।
গাজার সশস্ত্র গ্রুপগুলোর কেউ তাৎক্ষণিকভাবে এর দায়িত্ব স্বীকার করেনি।
উল্লেখ্য, ইসরাইলি অভিযান শুরুর পর থেকে শনিবার ছিল সবচেয়ে ভয়াবহ দিন। কেননা এদিনে ইসরাইলে হামলায় ৫৬ জন নিহত হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য