গাইবান্ধার সাঘাটায় মাধ্যমিক বিদ্যালয় গুলোতে সেকায়েপ প্রকল্প কোন কাজে আসছে না। প্রকল্পের নিয়োগকৃত রিসোর্স শিক্ষক (আরটি) ও স্কুল শিক্ষকরা (এসটি) কোন ক্লাসে উপস্থিত হচ্ছেন না। ক্লাস না নিয়েই শিক্ষা অধিদপ্তরের কোটি কোটি টাকা সংশ্লিষ্ট প্রধান শিক্ষকদের সাথে আতাত করে ভাগবাটোয়ারা করে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এদিকে নিয়োগকৃত শিক্ষকরা ক্লাসে উপস্থিত না থাকার দায়ে উপজেলার ৩টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানকে কারণ দর্শানো নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

দূর্বল শিক্ষার্থীদের ইংরেজি ও গণিত বিষয়ে পারদর্শি করার লক্ষে ২০১০ সাল থেকে শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের আওতায় উপজেলার ২৪টি মাধ্যমিক স্কুল ও ২ টি মাদ্রাসায় অতিরিক্ত ক্লাসের ব্যবস্থা নেওয়া হয়। সেকেন্ডারি এডুকেশান কোয়ালিটি এন্ড এনহান্সমেন্ট প্রজেক্ট (সেকায়েপ) শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে এটি বাস্তবায়ন করেন। বিদ্যালয়ের সময় সূচী মোতাবেক ছুটির দিনে ক্লাসগুলো নেওয়ার কথা। প্রকল্পের শুরুর দিকে ক্লাস নেওয়ার বিষয়ে স্বচ্ছতা থাকলেও সংশ্লিষ্ট চতুর প্রতিষ্ঠান প্রধানদের যোগসাজসে নিয়োগকৃত শিক্ষকরা ক্লাসে উপস্থিতি কমে দেন। এমনকি একদিনও ক্লাস না নিয়েই বেতনভাতা ঠিকঠাক মতোই নিতে থাকেন তারা। এমন অভিযোগের সত্যতা খুজতে শিক্ষা মন্ত্রনালয় থেকে অভিযানে আসেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

এরই মধ্যে অতিরিক্ত ক্লাসে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের উপস্থিতি না পেয়ে উপজেলার মথরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (স্মারক নং- অ.আ/০১/২০১২/৫৯৯), কচুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (স্মারক নং- অ.আ/০১/২০১২/৫৯৮), ওসমানেরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে (স্মারক নং- অ.আ/০১/২০১২/৫৯৭) কারণ দর্শানো নোটিশ প্রদান করা হয়। অতিরিক্ত ক্লাসে শিক্ষক উপস্থিতি না থাকার বিষয়ে কথা হলে মথরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রেজাউল করিম বলেন, ক্লাস নেই বা না নেই আমাদের ব্যাপার। কারো কিছু করার নেই বলেও নেতিবাচক মন্তব্য করেন তিনি। কারণ দর্শানোর নোটিশ বিষয়ে তিনি বলেন, শিক্ষককে ছুটি দিয়েছি। তাই উপস্থিত ছিলো না। এটি আমি ভুল করেছি। মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাহ আলম পারভেজ জানান, প্রকল্পের শিক্ষকরা ক্লাসে উপস্থিত না থাকার বিষয়টি শুনেছি। সে কারণেই কারণ দর্শানো নোটিশ। এদিকে কারণ দর্শানোর নোটিশ পেয়েও প্রতিষ্ঠান প্রধানরা জনাবের কপি মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে জমা দিচ্ছেনা না বলেও অভিযোগ তার।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য