04. somalia attackইসলামি উগ্রবাদী শেবাবের বিদ্রোহীরা গত মঙ্গলবার রাতে সোমালিয়ার প্রেসিডেন্টের প্রাসাদে শক্তিশালী বোমা ও সশস্ত্র হামলা চালিয়েছে। বিদ্রোহীরা নিজেদের উড়িয়ে দেয়ার আগেই রাজধানী মোগাদিসুতে কঠোর নিরাপত্তা বেস্টিত এ ভবনে উপর্যুপরি হামলা চালাতে সক্ষম হয়।
সরকারি কর্মকর্তারা জানান, আন্তর্জাতিক সমর্থনপুষ্ট সোমালিয়ার প্রেসিডেন্ট হাসান শেখ মাহমুদ ও প্রধানমন্ত্রী আব্দিওয়েলি শেখ আহমেদ হামলার সময় প্রসাদের ভেতরে ছিলেন না। তারা দু’জনেই নিরাপদ রয়েছেন। আল-কায়েদা সম্পৃক্ত শেবাবের একই ধরনের হামলার মাত্র পাঁচ মাস পর নতুন এ হামলার ঘটনা ঘটলো।
কর্তৃপক্ষ সর্বশেষ এ হামলার ঘটনায় হতাহতের ব্যাপারে তাৎক্ষণিকভাবে বিস্তারিত কিছু জানাতে পারেনি।
নিরাপত্তা কর্মকর্তা আব্দি আহমেদ বলেন, ‘হামলায় কমপক্ষে নয় জন অংশ নেয়। তারা সকলেই ঘনাস্থলেই নিহত হয়। বর্তমানে সেখানের পরিস্থিতি সরকারি বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। যুদ্ধ বন্ধে সেখানে আটদফা বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। ধারণা করা হচ্ছে জঙ্গিরা আত্মঘাতি পোশাক পরিহিত ছিল। তারা সেখানে নিজেদের উড়িয়ে দেয়।’
শেবাব গ্রুপ এ হামলা চালিয়েছে এমন কথা তাদের এক মুখপাত্র নিশ্চিত করেছে।
শেবাব মুখপাত্র আবদুলাজিজ আবু মুসাব এএফপি’কে বলেন, ‘আমাদের কমান্ডোরা তথাকথিত প্রেসিডেন্টের দফতরের ভেতরে রয়েছে। সরকারি এ সদর দফতরের নিয়ন্ত্রণ আমাদের হাতে রয়েছে। ‘এ অভিযানে শুত্রু পক্ষের অনেক লোক হতাহত হয়েছে। সেখানে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। বিদেশি সমর্থনপুষ্ট সরকার এমন কথা জানানোর পর এ হামলা আমাদের জন্য একটি বড় বিজয়।’
পুলিশ জানায়, হামলাকারীরা প্রেসিডেন্টের ভবনে দু’দফা হামলা চালায়। তারা কম্পাউন্ডে একটি বিশাল আকারের বোমা পেতে রেখে অপর একটি প্রবেশ পথে হামলা চালায়। উল্লেখ্য, ইফতারের সময় শুরুর পরপরই এ হামলা চালানো হয়।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, তারা প্রেসিডেন্টের প্রাসাদ থেকে গোলাগুলি ও বিস্ফোরণের শব্দ শুনতে পান।
সোমালিয়ায় জাতিসংঘের শীর্ষ দূত নিকোলাস কে জানান, এটি ছিল সোমালিয়ার শান্তি কেড়ে নেয়র একটি প্রচেষ্টা। তিনি বলেন, এক্ষেত্রে ‘সন্ত্রাসিরা সফল হতে পারবে না।’
এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকেও এ হামলার কঠোর নিন্দা জানানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য