04. volkanসিনেমা রিলিজ পাওয়ার আগেই সিনেমার গান সুপার হিট কেবল হিট বললে কমই হবে প্রতিদিন যেন এক ভিলেন সিনেমার সং গুলোতে হিটের সংখ্যা বেড়েই যাচ্ছে। তবে কেবল কী গান সিনেমাটির নায়ক নায়িকা থেকে শুরু করে কে আসলেই সিনেমাটির ভিলেন প্রতিদিন যেন কৌতূহল জন্ম দিয়ে যাচ্ছে শ্রদ্ধা কাপুর- সিদ্ধার্থ মালহোত্রা- রিতেশের এক ভিলেন সিনেমাটি। তবে গান বলুন আর কলাকুশলী বলুন আসলেই কী সিনেমাটি দেখার মতো হতে যাচ্ছে। তবে চলুন জেনে নেই এক ভিলেন সিনেমাটি যে চমক গুলো আপনাকে বাধ্য করবে সিনেমাটি দেখতে।

(১) সিদ্ধার্থ – শ্রদ্ধা কাপুরের রসায়নঃ
সিনেমাটির প্রোমো রিলিজ পাওয়ার পর থেকেই সাধারণ মানুষের মুখে কেবল শ্রদ্ধা- সিদ্ধাথের্র নামই উচ্চারিত হচ্ছে। শ্রদ্ধা এবং সিদ্ধাথের্র ধোঁয়া উঠানো কেমেস্ট্রি এক ভিলেনকে যেন দিয়েছে জাদুকরী ছোঁয়া। এই দুই তারকা জুটি এবারই প্রথম একে অপরের বিপরীতে অভিনয় করার সুযোগ পেয়েছেন। আর ধারণা করা হচ্ছে এই নতুন জুটি সিনেমাটিতে নতুন স্বাদ এনে দিবে।
(২) আশিকি টু সিনেমার পরিচালক মোহিত সুরিঃ
বলিউডের এসময়ের অন্যতম সফল পরিচালকদের অন্যতম। ভাট ক্যাম্পের অধীনে আশিকি টু সিনেমাটি দিয়ে মোহিত প্রমাণ করেছিলেন যে তিনি চলচ্চিত্র জগতে বুঝেশুনেই প্রবেশ করেছেন। তবে এবারই প্রথম তিনি ভাট ব্যানারের বাইরে সিনেমা পরিচালনায় নামলেন। থ্রিলারধর্মী সিনেমায় মোহিত যে পারদর্শী তা তিনি ইতোমধ্যেই আশিকি টু এবং মাডারটু’র মতো থ্রিলারে পরিপূর্ণ সিনেমা উপহারেই বুঝিয়ে দিয়েছেন।
(৩) রিতেশ দেশমুখের ভিন্নধর্মী আবতারঃ
আমারা সাধারত এই অভিনেতাকে রোমান্টিক নয়তো কমেডি সিনেমায় অভিনেয় করতে দেখেছি শুধু দেখেছি বললে বোধয় কমই বলা হবে কেনন কমেডি সিনেমার জগতে রিতেশ ইতোমধ্যেই নিজের আলাদা স্থান করে নিতে সক্ষম হয়েছেন। চকলেট হিরোর অবয়বে রিতেশ দেশমুখকে এমন একটি সিরিয়াস চরিত্রে দেখার জন্য উদগ্রীব হয়ে রয়েছেন তার ভক্তরা। শুধু তাই নয়, সিনেমার প্রোমোতেই রিতেশ তার উপস্থিতির দারুন প্রমাণ দেখিয়েছেন আর এই কারণেও ভক্তদের আগ্রহের শেষ নেই।
(৪) সিনেমার হৃদয়গ্রাহী গানঃ

প্রথমেই যা বলেছিলাম সিনেমা রিলিজ পাওয়ার ‘এক ভিলেন’র হৃদয়গ্রাহী গানগুলো শ্রোতাদের হৃদয়ে দাগ টানতে সক্ষম হয়েছে। অনেক সময় এমন হয় সিনেমার কেবল একটি গান হিট হয় কিন্তু এই সিনেমার প্রায় প্রতিটি গানই পেয়েছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা। আরও একটি দিক মোহিত সুরি আর ভালো গান যেন একে অপরের পরিপুরক হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই পরিচালকের আশিকি টু এবং মাডারটু’ সিনেমার কথাই ধরুন দুটি সিনেমার প্রতিটি গানই কিন্তু সমান জনপ্রিয়তা পেয়েছে।
(৫) প্রক্রিতপক্ষে সিনেমার ভিলেনটি কেঃ

সিনেমাটির প্রোমো শুরু থেকেই কৌতূহল সৃষ্টি করতে সক্ষম হয়েছে। প্রোমো দেখে প্রথমে মনে হতে পারে সিদ্ধার্থ নিজেই বুঝি বুঝি সিনেমার ভিলেন। কিন্তু প্রোমোর শেষের দিকে রিতেশের উপস্থিতি আপনার সব জল্পনা কল্পনাকে উড়িয়ে দিবে তখন মনে হতে থাকবে তবে বুঝি রিয়েল ভিলেন রিতেশ দেশমুখই কিন্তু না সত্যটা উন্মোচনে আপনাকে অবশ্যই সিনেমাটি দেখতে হবে।

 

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য