05. netanyahu ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী পশ্চিমা বিশ্বের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেছেন, ইরানের পরমাণু ইস্যুতে, সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র দূরীকরণে যে নীতি অবলম্বন করা হয়েছিল, সেই একই নীতি অবলম্বন করা যেতে পারে।  প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামেন নেতানিয়াহু ইরানের পরমাণু সমৃদ্ধকরণ কর্মসূচি নিয়ে উদ্বিগ্ন। একইসঙ্গে চলমান ইরাক-সহিংসতার সঙ্গে ইরানের সম্পর্ক খুঁজছেন। বেনইয়ামেন নেতানিয়াহু ব্রিটেনের বার্তাসংস্থা স্কাই নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে জানান, তার বিবেচনায়, অস্ত্র নির্মূলকরণে সিরিয়ার সঙ্গে যে পদ্ধতি অবলম্বন করা হয়েছে, সেটিই সবচেয়ে উত্তম। সেখানে অস্ত্র তৈরির উপকরণগুলো প্রথমে সংগ্রহ করা হয়েছিল, অতঃপর নির্মূল করা হয়েছিল। কিন্তু ইরানের ক্ষেত্রে তা হচ্ছে না। নেতানিয়াহু বলেন, বিপরীতক্রমে ইরান অস্ত্র তৈরির উপকরণগুলো সংরক্ষণ করছে এবং সবাই তা শুধু পর্যবেক্ষণ করছে। তার চোখে এটা নিরস্ত্রীকরণের পক্ষে নিকৃষ্টতম উপায়। তিনি ইরানচালিত শিয়া মতাবলম্বীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, ইরাক ও সিরিয়ায় শিয়ারা এ মুহূর্তে যে ভূমিকা অবলম্বন করছে, তার চেয়ে ইরানের পরমাণু ইস্যুতে, তার বিরুদ্ধে এগোনো অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। ইরানের পারমাণবিক উত্থান হলে তা মধ্যপ্রাচ্যের সর্বকালের সকল বিপর্যয়কে ছাড়িয়ে যাবে বলে আশংকা প্রকাশ করেন ইসরায়েলী প্রদানমন্ত্রী।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য