বোচাগঞ্জে বঙ্গঁবন্ধু ও বঙ্গঁমাতা ফুটবল টুর্ণামেন্টের ফাইনাল খেলা সম্পন্নসুলতান মাহমুদ (ফলোআপ) : দিনাজপুর খানসামায় প্রেমের স্বীকৃতি বিয়ের দাবী চাইতে গিয়ে প্রেমিকের ছোড়া এসিডের ঝলছে গেল প্রেমিকা স্মৃতি রানীর (১৮) মুখো মন্ডল  । চরম যন্ত্রণায় মৃত্যুর প্রহর ঘুনছে দরিদ্র দিন মজুর বাবার দি¦তীয় কন্যা স্মৃতির রানী । প্রেমিকা স্মৃতি রানী  তিন মাসের অন্তসত্ত্বা বলে বলে দারী করেন ।

আজ শনিবার খানসামার গোয়ালডিগি ইউনিয়নের দুবলিয়া গ্রামে সরে জমিনে পরিদর্শন করে দেখা গেছে এসিডে মুখ মন্ডল ঝলছে গিয়ে তিন মাসের অন্তসত্ত্বা প্রেমিকা  স্মৃতি রানী মৃত্যুর প্রহর ঘুনছে ।  স্মৃতি রানী রমেশ চন্দ্র রায়ের দ্বিতীয়  কন্যা সন্তান ।

একই গ্রামের প্রতিবেশী ঠাকুরগাও সরকারী কলেজের প্রভাষক বজ্রন্দ্রনাথ রায়ের ছেলে সুব্রত রায় (২৪) প্রেমের জালে ফেলে কাজের মেয়ের সাথে দীর্ঘ দিন ধরে দৈহিক মেলামেশা করে । এত করে প্রেমিকা  স্মৃতি রানী তিন মাসের অন্তসত্ত্বা হয়ে পরে । প্রেমিকার গর্ভপাত ঘটানোর জন্য প্রেমিক সুবৃজ রায় ও তার গনিষ্ঠ বন্ধু টেপরা রায় ( ২৫) সুকৌশলে সৈয়দপুর একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে এমআর করার জন্য নিয়ে যায় ।

প্রেমিকা গর্ভপাতের বিষয়টি জানতে পেড়ে ক্লিনিক থেকে পালিয়ে আসে ।  গত সপ্তাহে প্রেমিকা স্মৃতি রানী  মায়ের সাথে বাড়ীর নিত্যদিনের শেষ করে দুপুরে পুকুরে গোসল করার জন্য যায় । সেখানে পুকুর ধারের এক গাছের উপর প্রেমিক সুব্রত রায় ও তার বন্ধু টেপরা রায় পর্ব পরিকল্পনা অনুসারে গাছে উটে বসে থাকে । প্রেমিকা স্মৃতি রানী পুকুর  ঘাটে নামার  সাথে সাথে প্রেমিক ও তার বন্ধু জোড় পুর্বক স্মুতি রানীকে টেনে হেছড়ে পাট ক্ষেতে নিয়ে যায় ।

শারীরিক ভাবে নির্যাতন করে  মুখে এসিড নিক্ষেপ করে। এতে প্রেমিকার সমস্ত মুখমন্ডল ঝলছে যায় ।তার আত্ম চিৎকারে   গ্রাম বাসীরা এগিয়ে এসে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে দিনাজপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে । দিনাজপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে  চিকিৎসার পর চিরিরবন্দর রানীরবন্দর জেনারেল প্রাকটিশনাল হাসপাতালের ডাঃ অবিনাশ চন্দ্র দাসের নিটক চিকিৎসা গ্রহন করেছে  । বর্তমানে এসিডে ঝলসে যাওয়া প্রেমিকার শারীরিক অবস্থা আশংকা জনক বলে ডাঃ অবিনাশ চন্দ্র দাস জানিয়েছে ।

স্থানীয় ইউপি সদস্য কমল চন্দ্র রায় জানায় প্রেমিক সুব্রত রায়ের বাবা  প্রফেসার বজ্রন্দ্রনাথ রায় এলাকার প্রভাবশালী হওয়ায় স্থানীয় প্রশাসন কিছুই করতে পারচ্ছিনা । তিনি আরো জানায় এসিড নিক্ষেপের পর হত্যার উদ্দেশ্যে স্মৃতি রানীকে মুখে বিষ  ঢেলে দিয়ে ছিল  ।সেই বিষের বোতলও আমি উদ্ধার করেছি ।

প্রেমিকের সাথে যোগাযোগের জন্য তার বাড়ীতে গেলে প্রেমিকের মা সুফলা রানী ও বাবা প্রফেসার বজ্রন্দ্রনাথ রায় ও প্রেমিক  সুব্রত রায় বাড়ীতে কাউকে পাওয়া যায়নি ।

এ ব্যাপারে স্থানীয় চেয়ারম্যানকে মৌখিক ভাবে বিষয়টি জানানো হলেও কোন পদক্ষেপ গ্রহন করেনি ।

স্বানীয় মীমাংসা করার আশায় কালক্ষেপন করে থানায় বিষয়টি জানানো হয়নি বলে স্বানীয় ইউপি সদস্য কমল রায় জানায় । তবে মীমাংসা না হওয়ায় আজ শনিবার মামলা করা হবে বলে জানিয়েছে মেয়ের বাবা রমেশ চন্দ্র রায় ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য