SAMSUNG CAMERA PICTURESআনোয়ার হোসেন আকাশ, রাণীশংকৈল, ঠাকুরগাও : ঠাকুরগাওয়ের রাণীশংকৈল করনাইট কুমোরগঞ্জ গ্রামের আবুল কাশেমের মেয়ে করনাইট আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী মিরা আক্তার (১৪) ২০ জুন প্রাইভেট পড়তে গিয়ে অপহৃত হয়।

পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, কাশিপুর জগদল সীমান্ত এলাকায় চিকনমাটি গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে আলী আকবর দির্ঘদিন থেকে ভারতের পানিপথে থাকে। কাজের ছুটিতে বাবা মার সাথে দেখা করতে এসে মিরাকে বিয়ে করার জন্য তার বাড়িতে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। সে ভারতে অবৈধভাবে বসবাস করা এবং মেয়ে নাবালিকা হওয়ায় ছেলের প্রস্তাবে অসম্মতি জানায় মেয়ের পরিবার।
পারিবারিকভাবে পূনরায় অসম্মতি জানার ফলে মিরা প্রাইভেট পড়তে গেলে ওত পেতে থাকা আলী আকবার সঙ্গীয় লোকজন নিয়ে মিরাকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে অপহরণ করে।

মিরাকে অনেক খোজাখুজি করে পাওয়া না গেলে এব্যাপারে মেয়ের বাবা ইউপি চেয়ারম্যানের সহযোগিতায় রাণীশংকৈল থানায় গত ২২ জুন একটি ডায়েরী করা হয়। ডায়েরী নাম্বার ৬৯১।

অপহৃতা মিরা মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে ভারতীয় ৯১৭৩৫৭৬৬৭১৭২ মোবাইল ফোন থেকে তার বাবাকে ০১৭৯৬০২৯৭১২ জানায় “ আমাকে উদ্ধার করে নিয়ে যাও বাবা, আমি খুব বিপদে আছি”।

এব্যাপারে অপহরনকারী আলী আকবর জানায়, আমি মিরাকে বিয়ে করেছি, এক বছরের আগে মিরাকে বাংলাদেশে যেতে দেয়া হবেনা।

কাশিপুর ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, অপহৃত মিরা ভারতের পানিপথে আছে। তবে তাকে উদ্ধারের ব্যাপারে আমার কাছে কেউ সহযোগিতা চায়নি।

থানা অফিসার ইনচার্জ মোনায়েম হোসেন জানান,  মহিলা পরিষদ ঢাকা ও মহিলা আইনজীবি পরিষদ সে দেশের এ্যাম্বাসির সাথে যোগাযোগ করে  মিরাকে উদ্ধারের ব্যাপারে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করতে পারবে।

অপহৃত মিরা কষ্টে থাকায় তার বাবার কাছে মোবাইল ফোনে তার আকুতির জানালে তারা মানষিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। অপহৃত মেয়েকে উদ্ধারের জন্য সকলের সহযোগিতা চাইলেন মেয়ের বাবা-মা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য