শ্রীলংকায় আনুষ্ঠানিকভাবে ওষুধ রপ্তানী করবে সরকারশ্রীলংকায় ওষুধ রপ্তানী করতে যাচ্ছে সরকার আর এ লক্ষে শ্রীলংকা সরকারের সঙ্গে এক আনুষ্ঠানিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে।

সোমবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মাদ নাসিম ও শ্রীলংকার স্বাস্থ্যমন্ত্রী মেইথরিপালা সিরিসেনার সঙ্গে এ বিষয়ক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

এ সময় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মাদ নাসিম বলেন, এই প্রথম সরকারিভাবে অন্য একটি দেশে ওষুধ রপ্তানী করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ সরকার। যা আমাদের জন্য একটি বড় অর্জন। আমাদের ওষুধের সুনাম বিশ্বব্যাপী। আর আজকের (সোমবারের) এই চুক্তির মাধ্যমে এই সুনাম আরো বৃদ্ধি পাবে।

তিনি বলেন, আমরা শ্রীলংকায় যে ওষুধ রপ্তানী করবো তার আন্তর্জাতিক মান ও দামে হবে। আর তা নিষন্ত্রণে একটি কমিটি গঠন করা হচ্ছে। এই কমিটি মনিটরিং-এর কাজ করবে।

তিনি বলেন, দুই দেশের প্রতিনিধি বা সদস্যদের নিয়েই এই মনিটরিং কমিটি গঠন করা হচ্ছে। ফলে ওষুধের মান ও দাম আন্তর্জাতিকভাবে নিষন্ত্রণে বেশ সহায়ক ভূমিকা রাখবে।

তিনি বলেন, এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হলো, এবার তা আইন মন্ত্রণলায়ে যাবে চূড়ান্ত হওয়ার জন্য।

এ সময় মোহাম্মাদ নাসিম শ্রীলংকার স্বাস্থ্যমন্ত্রী মেইথরিপালা সিরিসেনার সঙ্গে রশিকতা করে বলেন, আমরা বারবার ক্রিকেটে শ্রীলংকার কাছে হেরে আসছি। আমরা আর হারতে চাই না। আমরা ওষুধ রপ্তানীর মতো এ ক্ষেত্রেও জিততে চাই।

এ সময় শ্রীলংকার স্বাস্থ্যমন্ত্রী মেইথরিপালা সিরিসেনার বলেন, ১৯৭২ সাল থেকে বাংলাদেশের সঙ্গে আমাদের সুসম্পর্ক। এবার ওষুধ রপ্তনীর মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশ এই সম্পর্ককে আরো সামনের দিকে নিয়ে যেতে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।

এ সময় জানানো হয়, শুধু ওষুধই নয় বাংলাদেশ সরকার শ্রীলংকায় বিভিন্ন মেডিকেল যন্ত্রপাতিও রপ্তানী করবে।

এই চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উচ্চপদের কর্মকর্তারা।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের মার্চে বাংলাদেশের একটি প্রতিনিধি দল শ্রীলংকার সফর করে। এরপরই ওষুধ রপ্তানীর এ উদ্যোগ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য