শফিউল আলম প্রধানমাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ মেয়াদ শেষ হলেই সংলাপ জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন’র সাথে বৈঠকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদের বক্তব্যের কঠোর সমালোচনা করে ১৯ দলীয় জোট নেতা ও জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান বলেছেন, সভ্য সংসদীয় গনতান্ত্রিক রাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতিরা দল নিরপেক্ষ হন। কিন্তু গদির লোভে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি  আওয়ামী জাহিলিয়াতের মূখপাত্রে পরিণত হয়েছেন।  নির্দলীয়-নিরপেক্ষ সরকারের দাবী মেনে নিয়ে হাসিনার প্রশাসন সংলাপে বসবে কি না এটা ফয়সালা আব্দুল হামিদ কিংবা মান কি মুনের উপর নির্ভর করে না। রাজপথে কিভাবে দাবী মানতে বাধ্য করা হয় দেশের মানুষ তা জানে।

শফিউল আলম প্রধান শনিবার বিকেলে ঐতিহাসিক পলাশী ট্রাজেডি স্মরনে দিনাজপুর রেল স্টেশন চত্বরে জেলা যুব জাগপা আয়োজিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ সব কথা বলেন। প্রধান আরো বলেন, আদালতের বারান্দায় কিংবা আদালতের রায়ে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়নি। ৫ শতাংশ ভোটের মালিকানায় শেখ হাসিনার সরকার বৈধ কি অবৈধ আদালতের রায়ে তা নির্ধারিত হবে না। বাংলাদেশসহ তাবৎ দুনিয়া জানে ভোটারবিহীন নির্বাচনে দিল্লির কোলে বসে হাসিনা গদিতে বসেছেন। ৫ জানুয়োরী কুত্তা ছাড়া ভোট কেন্দ্রে আর কাউকে দেখা যায়নি। ১৫৪ জন সংসদ সদস্য বিনা প্রতিদ্বিন্দ্বিতায় নির্বাচিত হলো। পৃথিবীর ইতিহাসে এমন নজির নেই।  সুতরাং জীবন থাকতে এ কুত্তা মার্কা নির্বাচনে শিয়াল মার্কা সরকারকে জনগণ মেনে নিবে না।

তিনি বলেন, জালিম শাহীর হাতে ও ঠোটে রক্ত। পিলখানায় সেনা বিডিআর হত্যা, নারায়নগঞ্জ, ফেনী, সাতক্ষিরা, লক্ষিপুরসহ সারা দেশে বেপরোয়া গুম, খুন, অপহরণ, কালসি বিহারী পল্লীতে গনহত্যা, অগ্নিসংযোগ, লুন্ঠন ও শাপলা সত্বরে এতিম, আলেম-ওলামাদের নির্মম গনহত্যায় আল্লাহর আরশ কাঁপলেও জালিম শাহীর বুক কাঁপেনি। হাসিনার পৃথিবী ছোট হয়ে আসছে। নিরপরাধ মজলুম মানুষের প্রতি ফোটা রক্তের হিসাব বুঝে নেয়া হবে। তিনি বলেন, আওয়ামী জামানায় দূর্নীতিতে দেশ সয়লাব হয়ে গেছে। কৃষকদের ঘরে হাহাকার, চাঁদাবাজি, টেন্ডাবাতিতে ব্যবসা-বানিজ্য অচল হয়ে পড়েছে। সীমান্তে পাখির মত মানুষ হত্যা করা হচ্ছে। এ অবস্থা চলতে পারে না। চলতে দেয়া যায় না। বাংলাদেশে আর কোন পলাশীর ট্রাজেডি হতে দেয়া হবে না। দিল্লির কাছে আত্মা বন্ধক দিয়ে আরেকটি পলাশীর মত আওয়ামী শাসকেরা বাংলাদেশকে ভূটান, কাশ্মির, ফিলিস্তিন বানানোর চক্রান্তে— লিপ্ত। তিনি আযাদী রক্ষায় বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে যুব সমাজকে আরেকটি স্বাধীনতা যুদ্ধের প্রস্তুতি নেয়ার আহবান জানান।

জেলা যুবজাগপার সভাপতি ৈেসয়দ ইমরুল কায়েস রুপম’র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ আসাদুজ্জামান চৌধুরী বুলেট’র সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা জাগপার সভাপতি আলহাজ্ব রকিব উদ্দীন চৌধুরী মুন্না, সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহজাহান খোকন, যুব জাগপার কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক শেখ ফরিদ উদ্দীন, জেলা জাগপার সহ-সভাপতি মাহবুব আলম ননী, এ্যাভোকেট নুরুন্নবী, যুগ্ম সম্পাদক ইশতিয়াকুল আলম, জাগপা নেতা রেজাউল ইসলাম, একেএম আজাদ, বাদশা আলমগীর, শাহিনুর বেগম, মেহেদী হাসান, মাজেদুর রহমান, মাসুদ রানা, রাজু আহমেদ, রুবেল আহমেদ, রইসুল ইসলাম, মোঃ সোহেল, আবুল হোসেন খোকন, মোঃ জামান প্রমূখ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য