অবৈধভাবে ভারতে ঢোকার সময় কুড়িগ্রাম ফুলবাড়ি সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে শিশুসহ একই পরিবারের চারজন আহত হয়েছেন। রোববার রাতে উপজেলার খালিশা কোটাল এবং ভারতের বশকোটাল ক্যাম্প সীমান্ত এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে খবর পেয়ে বিজিবি অভিযান চালিয়ে ওই পরিবারের আরো ছয়জনকে আটক করেছে এবং গুলিবিদ্ধদের ফুলবাড়ি হাসপাতালে ভর্তি করে। ফুলবাড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আব্দুল হাই জানান, ওই চারজনের গায়ে রাবার বুলেট লেগেছে। তারা এখন শঙ্কামুক্ত।

বিজিবির বালাহাট বিওপির নায়েক সুবেদার মকবুল হোসেন জানান, রাত সাড়ে ৯টার দিকে খালিশা কোটাল এবং ভারতের বশকোটাল ক্যাম্প সীমান্ত এলাকায় আন্তর্জাতিক পিলার নম্বর-৯৩৪/১এস- এর পাশ দিয়ে ওই হিন্দু পরিবারটির ১০ সদস্য ভারতে যাওয়ার চেষ্টা চালায়। এ সময় ভারতের ১২৪ বিএসএফের বশকোটাল সীমান্ত ফাঁড়ির জওয়ানরা তাদের লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে। তিনি বলেন, গুলির শব্দে কুড়িগ্রাম ৩৪ বিজিবির বালাহাট বিওপির জওয়ানরা খালিসা কোটাল সীমান্তে গিয়ে অভিযান চালায়। এসময় গুলিবিদ্ধ শিউলী রাণী দাস (৪০), তার মেয়ে শ্রাবন্তী দাস (৩) এবং ভাতিজা দেবলদা দাস (১৫) ও অজেয় চন্দ্র দাসকে (১৯) উদ্ধার করে ফুলবাড়ি হাসপাতালে ভর্তি কর।

একই সময় ওই পরিবারের অপর ছয় সদস্যকে আটক করা হয়। আটককৃতরা হলেন, সুনামগঞ্জ জেলার তাহেরপুর থানার সাহাগঞ্জ গ্রামের মৃত ঠাকুরধনের স্ত্রী পবিত্র রাণী দাস (৬৫) তার ছেলে রিন্টু চন্দ্র দাস (৪৫), রিন্টুর মেয়ে অন্তরা দাস (১২), ফাল্গুনি দাস (৮), স্বর্ণা দাস (৫), রিন্টুর ভাই রাজকুমার দাসের মেয়ে দোলন রাণী দাস (১৫)। পরে তাদের ফুলবাড়ি থানায় হস্তান্তর করা হয়।

এ বিষয়ে কুড়িগ্রাম ৩৪ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোফাজ্জল হোসেন আকন্দ বলেন, অবৈধভাবে সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে যাওয়ার অপরাধে আটক ১০ জনের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার জন্য পুলিশে হস্তান্তর করা হয়েছে।

অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম করার অভিযোগে বিজিবির দায়ের করা মামলায় আটককৃতদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে জানিয়ে ফুলবাড়ি থানার ওসি বজলুর রশিদ বলেন, ভারতের চেন্নাইয়ে আত্মীয়র বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার জন্য দালালের মাধ্যমে সীমান্ত অতিক্রম করছিল বলে জানিয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য