রাশিয়ান বাহিনী ইউক্রেনের সেভেরোডোনেটস্ক শহরের ৭০ শতাংশ নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে

রাশিয়ান বাহিনী ইউক্রেনের সেভেরোডোনেটস্ক শহরের ৭০ শতাংশ নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে

আন্তর্জাতিক

রাশিয়ান বাহিনী বুধবার পূর্ব ইউক্রেনের প্রধান শহর সেভেরোডোনেটস্ক দখলের কাছাকাছি পৌঁছেছে, তবে ইউক্রেন আশা করছে তাদের প্রতিরক্ষা সহায়তায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিশ্রুত আরো উন্নত রকেট ব্যবস্থার মাধ্যমে আক্রমণকারীদের প্রতিহত করতে পারবে।

লুগানস্ক অঞ্চলের গভর্ণর সের্গেই গেইডে বলেছেন, রাশিয়ানরা মূল শিল্প কেন্দ্রের ৭০ শতাংশ নিয়ন্ত্রণ করছে। ইউক্রেনীয় বাহিনী অবস্থান থেকে সরে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

তিনি নদী বেষ্টিত ইউক্রেন অধিকৃত শহর থেকে টেলিগ্রামে বলেছেন, ‘যদি দুই বা তিন দিনের মধ্যে রাশিয়ানরা সেভেরোডোনেটস্কের নিয়ন্ত্রণ নেয়। তারা কামান এবং মর্টার স্থাপন করবে এবং আরো তীব্রভাবে লিসিচানস্কে বোমাবর্ষণ করবে।’

ইউক্রেন সফলভাবে রাশিয়াকে ২৪ ফেব্রুয়ারি আক্রমনের পর কিয়েভ দখল থেকে বিরত রাখে কিন্তু দেশের পূর্বাঞ্চলে অভিযানে উচ্চমূল্য দিতে হচ্ছে। জেলেনস্কি বলেছেন, প্রতিদিন তাদের ৬০ থেকে ১শ’ সৈন্য মারা যাচ্ছে।

জেলেনস্কি মার্কিন নিউজগ্রুপ নিউজম্যাস্ককে বলেছেন, ‘দেশটির পূর্বাঞ্চলে পরিস্থিতি খুবই ভয়াবহ।’

পূর্ব লুগানস্ক অঞ্চলে শুধুমাত্র লাইসিচানস্কি প্রতিরোধের একটি পয়েন্ট অবশিষ্ট থাকায়, সেভেরোডোনেটস্ক বিশাল রাশিয়ান ফায়ার পাওয়ারের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে।

ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয়ের মুখপাত্র ওলেক্সান্ডার মোতুজিয়ানিক বলেছেন, সেভেরোডোনেটস্ক শহরের রাস্তায় লড়াই চলছে এবং রাশিয়ানরা শহরের কেন্দ্রে পৌঁছেছে।

তিনি বলেন, ‘ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনী সক্রিয়ভাবে তাদের প্রতিরোধ করছে।’

ফায়ার পাওয়ার সংকটে থাকা ইউক্রেনীয় বাহিনীকে আশ্বস্ত করে জেলেনস্কি বলেছেন, জো বাইডেন নিশ্চিত করেছেন যে দীর্ঘ পাল্লার অস্ত্র আসার পথে রয়েছে। এই নতুন অস্ত্র হিমার্স মাল্টিপল লঞ্চ রকেট সিস্টেম, যার পাল্লা ৮০ কিলোমিটার (৫০ মাইল)। বুধবার যুক্তরাষ্ট্র ইউক্রেনে ৭০ কোটি মার্কিন ডলারের সহায়তা প্যাকেজের আওতায় এই উন্নত রকেট ইউক্রেনে পাঠানোর অনুমোদন দিয়েছে।