শিক্ষাকে আনন্দময় করতেই এই পরিবর্তন : শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষাকে আনন্দময় করতেই এই পরিবর্তন : শিক্ষামন্ত্রী

জাতীয়

শিক্ষাটা যেন আনন্দময় হয়। গবেষণার মাধ্যমে আনন্দময় করে শিক্ষা দেওয়া হলে সেই শিক্ষায় শিক্ষার্থীরা আত্মস্থ করতে পারবে, ধারণ করতে পারবে। শিক্ষাকে আনন্দময় করতেই শিক্ষাব্যবস্থার এই পরিবর্তন। আমরা নতুন শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে সত্যি খুবই উজ্জীবিত।

আজ বুধবার দুপুরে গাজীপুরের কালিয়াকৈরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটির নবীনবরণ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্তৃক উদ্ভাবিত ব্লেন্ডেড লানিং সল্যুশন’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী ডা.দীপু মনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, আগামী শিক্ষাবছর থেকে আমাদের নতুন কারিকুলাম শুরু হচ্ছে। সেখানে অনেক চ্যালেঞ্জ থাকবে। সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ আমাদের শিক্ষকদের যথাযথ প্রশিক্ষণ দেওয়া। আমরা ইতোমধ্যেই এই প্রশিক্ষণ শুরু করে দিয়েছি। শিক্ষকদের যারা প্রশিক্ষণ দিবেন তাদের এবং শিক্ষাপ্রশাসকসহ সবার প্রশিক্ষণ শুরু হয়ে গেছে। আরও ব্যাপক আকারে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে। চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে আমাদের এই নতুন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতেই হবে।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষার্থীরা কেউ আংকে ভয় পায়, কেউ রসায়নকে ভয় পায়, কেউ সবকিছুতেই ভয় পায়। এই ভয় থেকেই শিক্ষার্থীদের মধ্যে দ্বিধাদ্বন্দে ভোগে। কিন্তু এই ভয় কেন পায়, কারণ হচ্ছে তাদের যে পদ্ধতিতে পড়ানো হয়, শেখানো হয়। সেই পদ্ধতিতে তারা বিষয়কে ভয় পেতে শুরু করেছে। অলিম্পিয়াড দেখেন সেখানে সকল বয়সী শিশুর অংশগ্রহণ এবং তাদের মধ্যে কি এক উদ্দীপনা কাজ করেছে। তাহলে আসল বিষয় হচ্ছে আমরা কি করে শেখাচ্ছি। অলিম্পিয়াড শিক্ষকরা কিভাবে শিখায়। আমাদের শেখাটা যেন আনন্দময় হয় সেজন্য নতুন কারিকুলামে অলিম্পিয়াডের তাদেরকে সংযুক্ত করেছি।

এসময় বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ড. মুনাজ আহমেদ নূর এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড.ফরহাদ হোসেন। এর আগে শিক্ষামন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটির নবীন ও বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্তৃক উদ্ভাবিত ব্লেন্ডেড লানিং সল্যুশন’র শিক্ষার্থীদের ফুল ও সনদ প্রদান করেন।