গোবিন্দগঞ্জের মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতির বহিস্কার ও বিচার দাবি

গোবিন্দগঞ্জের মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতির বহিস্কার ও বিচার দাবি

রংপুর

আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ দলীয় শৃঙ্খলাবিরোধী কর্মকান্ডের প্রতিবাদে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি মুন্সি রেজওয়ানুর রহমানের বিরুদ্ধে তার বহিষ্কার ও বিচার দাবি করেন ৩ শতাধিক নেতাকর্মী।

বৃহস্পতিবার (২৬ মে) সকালে দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ, সহযোগী অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মী ছাড়াও এলাকার সর্বস্তরের লোকজন উপস্থিত ছিলেন।

মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আব্দুল ওয়াহেদ বিএসসি লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, আমরা গভীর উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছি, উপজেলার মহিমাগঞ্জ ইউপি নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের পরাজিত প্রার্থী মুন্সী রেজওয়ানুর রহমান প্রথম থেকেই দলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধাচারণ করে আসছিল। বার বার নির্বাচনে প্রার্থী হয়েও কোনদিন কোন নির্বাচনেই বিজয়ী না হওয়া রাজাকার পরিবারের সদস্য এই ব্যক্তির সংক্ষিপ্ত পরিচয় হলো তিনি মুসলিমলীগ পরিবারের সন্তান।

মুক্তিযুদ্ধকালীন শান্তি কমিটির নেতা বারী মৌলভী ও হালিম মুন্সীর ছোট ভাই এবং রাজাকার প্রধান জামাতের সাবেক আমির গোলাম আজমের ভাগ্নে। খোলস পাল্টিয়ে তিনি যতই মুজিব কোট পরিধান করুন, মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের এলাকাবাসী কখনোই তাকে বা তার পরিবারকে মেনে নিতে পারেনি। মহিমাগঞ্জ ইউনিয়নের বিগত উপ-নির্বাচনে তিনি ৪ জন প্রার্থীর মধ্যে সর্বশেষ ও ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসে অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে তৃতীয় হন। নির্বাচনে অসৎ উপায়ে বিজয়ী হওয়ার প্রলোভনে পড়ে বিকাশ প্রতারককে কয়েক লাখ টাকা দিয়ে তিনি দেশ-বিদেশে ভাইরাল হয়েছিলেন। পরবর্তীতে তিনি নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হয়ে আনারস প্রতীকে ভোট চেয়েছেন, যা মহিমাগঞ্জের সকলস্তরের মানুষই জানেন। ইউনিয়নের বর্তমানেও হাইব্রীড আওয়ামীলীগারদের সাথে হাত মিলিয়ে তিনি নিয়মিত দলের বিরুদ্ধাচারণ করেই চলেছেন।

উপস্থিত সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, সম্প্রতি উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বিতর্কিত সভাপতি মুন্সি রেজওয়ানুর রহমান নানাভাবে দলীয় নেতাকর্মীদের ভুল পথে পরিচালিত করার চেষ্টা করছেন। দলে হাইব্রীড নেতাদের প্রতিষ্ঠিত করতে উপজেলা আওয়ামী লীগের জনপ্রিয় নেতা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ প্রধানের নামে নানা অপপ্রচার শুরু করেছেন। তার এমন অপকর্মের কারণে তাকে দল থেকে বহিস্কার সহ দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে তাকে দল থেকে বহিস্কার করার দাবী জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুল ওয়াহেদ সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক আতিকুর রহমান আতিক, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আব্দুল মান্নান সরকার, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জুয়েল মিয়া, বীরমুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী, খাজা নাজিম উদ্দীন, শুকুর আলী, নাছির হোসেন সহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।