Las

পাবনায় দু’দিন ধরে ট্রাকে পড়েছিল চালকের সহকারীর পা-মুখ বাঁধা মরদেহ

রাজশাহী

পাবনার সাঁথিয়ায় আল-আমিন (১৯) নামে এক ট্রাকচালকের সহকারীর পা-মুখ বাঁধা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার মহিষাখোলা বড়ব্রীজ এলাকায় ট্রাকের ভেতর থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত আল-আমিন সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার মাহামুদপুর আমতলা এলাকার সুরুজ জামানের ছেলে।

সাঁথিয়া থানার ওসি আসিফ মোহাম্মদ সিদ্দিকুল ইসলাম জানান, পাবনা-সিরাজগঞ্জ মহাসড়কের সাঁথিয়া উপজেলার মহিষাখোলা নতুন ব্রিজের কাছে ট্রাকটি দুইদিন ধরে থামানো ছিল। মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে স্থানীয় কয়েকজন ট্রাকটির পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় পচা দুর্গন্ধ পান। তারা ট্রাকের চালকের আসনের পেছনে কেবিনে উঁকি দিয়ে পা ও মুখ বাঁধা একটি মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করে। বুধবার সকালে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। পরে নিহতের ময়না তদন্ত শেষে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

ওসি আরও জানান, ওই ট্রাকে প্রায় ১০ লাখ টাকার গো-খাদ্য ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, দুবৃর্ত্তরা ফিড মিলের সামনে থেকে ট্রাকের হেলপারকে অনুসরণ করে ট্রাকটি ওই স্থান থেকে নিয়ে যায়। পরে ট্রাকের হেলপার আল-আমিনকে হত্যা করে গো-খাদ্য লুট করে ট্রাকটি ফেলে পালিয়ে যায়। যারা এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে তাদের চিহ্নিত করে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। তবে ট্রাকচালকের কোন তথ্য জানাতে পারেনি পুলিশ। এ ঘটনায় এলাকার ফিড ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতংক দেখা দিয়েছে।