রংপুরের হত্যার দায়ে আসামীর আজীবন কারাদন্ড

রংপুরের হত্যার দায়ে আসামীর আজীবন কারাদন্ড

রংপুর

রংপুরের মিঠাপুকুরে গৃহবধু রেহেনা বেগম মাথায় পাথর দিয়ে কয়েক দফা আঘাত করে নৃশংস ভাবে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলা আসামি লাভলু মিয়াকে আজীবন কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত।

মঙ্গলবার দুপুরে রংপুরের বিশেষ জজ রেজাউল করিম এ রায় প্রদান করেন। রায় ঘোষনার সময় আসামি লাভলু মিয়া কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে রায় শুনেছে। এর পরেই তাকে কড়া পুলিশী পাহারায় আদালতের হাজত খানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

মামলার বিবরনে জানা গেছে ২০১৫ সালের ২৬ জুলাই তারিখে রাত ৮ টা থেকে সাড়ে ৮ টার মধ্যে রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার শংকরপুর উত্তর পাড়া গ্রামের আবদুস সাত্তারের ছেলে আসামি লাভলু মিয়া মামলার বাদী পার্শ্ববর্তী শংকরপুর মধ্যপাড়া গ্রামের খোরশেদ আলমের মা রেহেনা বেগমের ঘরের জানালা দিয়ে ঘরে প্রবেশ করে চুরি করার উদ্দেশ্যে কিন্তু ঘরের ড্রয়ার খুলে কিন্তু সেখানে মাত্র ১শ টাকা পায়।

এরপর আসামি লাভলু মিয়া রেহেনা বেগমের কানে পড়ে থাকা দুটি সোনার কানের দুল জোর করে ছিনিয়া নেবার চেষ্টা করে। একপর্যায়ে কান থেকে দুটি দুল ছিনিয়ে নেয়। এ সময় রেহেনা বেগম আসামি লাভলুকে চিনতে পেরে তার নাম ধরে বলার সাথে সাথে আসামি তার সাথে থাকা বড় পাথর দিয়ে রেহেনা বেগমের মাথায় উপযুপরি আঘাত করে হত্যা করে। এরপর তার মৃত দেহ টেনে হেচড়ে বাড়ির অদুরে একট্ িবাঁশ ঝাড়ে ফেলে চলে যায়।

এ ঘটনায় নিহত রেহেনা বেগমের ছেলে খোরশেদ আলম বাদী হয়ে মিঠাপুকুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করে। এ ঘটনায় পুলিশ আসামি লাভলু মিয়াকে গ্রেফতার করলে সে হত্যার কথা স্বীকার করে এবং আদালতে ম্যাজিষ্ট্রেটের কাছে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি মুলক জবান বন্দি প্রদান করে। পরে পুলিশ তদন্ত শেষে আসামি লাভলু মিয়ার নামে আদালতে চাজর্সীট দাখিল করে।

আদালত ২০১৬ সালের ১৫ জুন তারিখে মামলায় আসামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে। এরপর ২১ জন সাক্ষীর জবানবন্দি ও জেরা শেষে বিচারক আসামি লাভলু মিয়াকে দন্ড বিধি আইনের ৩০২ ধারায় দোষি সাব্যস্ত করে আজীবন সশ্রম কারাদ- ৩ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক মাসের কারাদন্ডের আদেশ দেন। অপরদিকে দন্ড বিধি আইনের ৩৮০ ধারায় দোষি সাব্যস্ত করে ৩ বছর সশ্রম কারাদ- ও এক হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ১৫ দিনের কারাদন্ডের আদেশ দেন। রায় ঘোষনার সময় আসামি আদালতের কাঠগড়ায় নীরবে দাঁড়িয়ে ছিলো।

সরকার পক্ষে মামলা পরিচালনা কারী আইন জিবী বিশেষ পিপি জয়নাল আবেদীন অরেজ্ঞ অ্যাডভোকেট জানান বাদী পক্ষ ন্যায্য বিচার পেয়েছে এ রায়ে তারা সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। অপরদিকে আসামি পক্ষে র আইনজিবী সুলতান আহাম্মেদ শাহিন অ্যাডভোকেট জানান তারা ন্যায্য বিচার পাননি এ রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপীল করবেন।