নাটোরে মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে একজন গ্রেফতার

নাটোরে মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেফতার

রাজশাহী

নাটোরের বড়াইগ্রামে মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মো. নাহিদ হাসান ওরফে নাজমুল (২৬) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৫)।সোমবার (১৬ মে) দুপুরে র‌্যাবের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এতথ্য জানানো হয়।গ্রেফতার নাহিদ হাসান বড়াইগ্রাম উপজেলার সংগ্রামপুর গ্রামের মো. আজাহার আলীর ছেলে।

শনিবার (১৪ মে) বিকেলে রাস্তা থেকে টেনেহেঁচড়ে আখ ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে ওই মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ করে নাহিদ হাসান। এই ঘটনায় রাতে ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে বড়াইগ্রাম থানায় ধর্ষণের অভিযোগে তার নামে মামলা দায়ের করেন।সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, শনিবার বিকেলে নানার বাড়ি থেকে নিজ বাড়িতে ফিরছিল ওই ছাত্রী।

পথে বড়াইগ্রামের জোনাইল ইউনিয়নের সংগ্রামপুর গ্রামের আজাহার হোসেনের ছেলে সিঙ্গাপুর প্রবাসী নাজমুল হাসান নাহিদ মেয়েটিকে রাস্তার পাশের আখ ক্ষেতে নিয়ে ধর্ষণ করেন। এ সময় মেয়েটির চিৎকার ও কান্নার শব্দে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে নাজমুল কৌশলে পালিয়ে যান। ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিল নাহিদ হাসান ওরফে নাজমুল।

পরে শনিবার (১৪ মে) রাতে ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করেন। এ অভিযোগে রোববার (১৫ মে) আদালতে ভিকটিমের জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়। বিষয়টি স্থানীয় লোকজনের মধ্যে ব্যাপক আলোড়ন ও এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টিসহ স্থানীয় ও বিভিন্ন জাতীয় গণমাধ্যমে ব্যাপকভাবে প্রচারিত হয়।

এতে র‌্যাব ওই ধর্ষণকারীকে গ্রেফতারে গোয়েন্দা তৎপরতা ও নজরদারী জোরদার করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে নাটোর ক্যাম্পের একটি আভিযানিক দল বিশেষ গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে ধর্ষক মো. নাহিদ হাসান ওরফে নাজমুলকে রোববার দিনগত সাড়ে ৩ টার সময় বড়াইগ্রামের মহানন্দাগাছা টানপাড়া গ্রাম থেকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

পাশাপাশি তাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এতে নাহিদ ভিকটিমকে ধর্ষণ করার বিষয়টি স্বীকার করেন। পরে অভিযুক্তকে নাটোর জেলার বড়াইগ্রাম থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।র‌্যাব-৫, সিপিসি ২, নাটোর ক্যাম্প কোম্পানি অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ফরহাদ হোসেন ও কোম্পানি উপ-অধিনায়ক সহকারী পুলিশ সুপার মো. রফিুকর ইসলাম এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে অভিযোগের সত্যতা ও আসামি গ্রেফতারে বিষয়টি নিশ্চিত করে বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু সিদ্দিক জানান, ঘটনার সঠিক তদন্ত করা হবে। এ ব্যাপার প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।