রাজশাহীতে নারী ইউপি সদস্যকে দুই দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

রাজশাহী

রাজশাহীর মোহনপুরের এক নারী ইউপি সদস্যকে দুই দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে জাহানাবাদ ইউপির মোল্লাহপাড়া গ্রামের মৃত সেফাতুল্লাহর ছেলে মজিবুর রহমানের (৪৭) বিরুদ্ধে। এ অভিযোগে শনিবার থানায় মামলা হয়েছে।

ভিকটিম নারী সদস্যকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস (ওসিসি) সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ বলছে, বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ওই নারী সদস্যকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে আটকে রেখে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ১২ মে রাত ৯টার দিকে মোহনপুর উপজেলার জাহানাবাদ ইউনিয়নের ধোরশা মোল্লাপাড়ার মজিবর রহমান ওই নারী সদস্যকে (৪২) বিয়ের আশ্বাস দিয়ে নিজ বাড়িতে নিয়ে যান। দুই দিন আটকে রেখে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে মজিবর রহমান। শুক্রবার রাতে নারী সদস্য বিয়ের চাপ দিলে মজিবুর রহমান পালিয়ে যান।

নারী সদস্য পুলিশের হটলাইন ৯৯৯-এ ফোন দিলে মোহনপুর থানা পুলিশ গভীর রাতে নারী সদস্যকে উদ্ধার করে। শনিবার মজিবুর রহমানসহ তিনজনকে আসামি করে থানায় মামলা হয়।

মোহনপুর থানার ওসি তৌহিদুল ইসলাম জানান, থানায় ধর্ষণের মামলা হয়েছে। শারীরিক পরীক্ষার জন্য নারী ইউপি সদস্যকে রামেক হাসপাতালের ওসিসিতে পাঠানো হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।