বার্সেলোনার জয়কে ছাপিয়ে গেল আরাউহোর ইনজুরি

বার্সেলোনার জয়কে ছাপিয়ে গেল আরাউহোর ইনজুরি

খেলা

পিয়েরে-এমেরিক অবামেয়াংয়ের জোড়া গোলে কাল ঘরের মাঠ ক্যাম্প ন্যুতে সেল্টা ভিগোকে ৩-১ গোলে পরাজিত করে লা লিগার দ্বিতীয় স্থান আরো মজবুত করেছে বার্সেলোনা। কিন্তু ম্যাচের ৬৪ মিনিটে ডিফেন্ডার রোনাল্ড আরাউহোর মাথার গুরুতর ইনজুরিতে বার্সা শিবিরে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। ইনজুরির মাত্রা এতটাই গুরুতর যে আরাউহোকে এ্যাম্বুলেন্সে করে সাথে সাথেই হাসপাতালে নিতে হয়েছে।
বার্সেলোনা নিশ্চিত করেছে ২৩ বছর বয়সী এই ডিফেন্ডারের ইনজুরির মাত্রা পুরোপুরি নিশ্চিত হতে আরো কিছু পরীক্ষা নিরীক্ষার প্রয়োজন রয়েছে। মাঝমাঠে উড়ে আসা একটি বল হেড করতে গিয়ে সতীর্থ গাভির সাথে মাথায় গুরুতর আঘাত পান এই উরুগুইয়ান। সাথে সাথে মাটিতে পড়ে যান। বেশ কিছুক্ষন চিকিৎসার পর উঠে দাঁড়িয়ে হাটার চেস্টা করলেও আবারো মাটিতে পড়ে যান।
ম্যাচ শেষে বার্সা কোচ জাভি হার্নান্দেজ বলেছেন, ‘চিকিৎসকরা জানিয়েছেন তার জ্ঞান আছে। হাসপাতালে থাকলেও এখন তাকে শঙ্কামুক্ত বলা যায়। বিষয়টি নিয়ে খুব একটা চিন্তিত না হবার কথা জানিয়েছে চিকিৎসকরা। সতর্কতার কারনে আরাউহোকে রাতে হাসপাতালে রাখা হয়েছিল।’
ক্যাম্প ন্যুতে কাল ৩০ মিনিটে মেমফিস ডিপের গোলে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। এরপর অবামেয়াংয়ের দুই অর্ধের দুই গোলে ব্যবধান বেড়ে দাঁড়ায় ৩-০। বিরতির পর ইয়াগো আসপাসের গোলে সেল্টা এক গোল পরিশোধ করলেও ৫৮ মিনিটে জেইসন মুরিলো সরাসরি লাল কার্ড পেয়ে মাঠত্যাগ করলে সফরকারীদের সব আশা শেষ হয়ে যায়।
জাভি বলেছেন, ‘আমরা জিতলেও ভাল খেলতে পারিনি। ১০ জনের বিরুদ্ধেও আমরা একই রকম খেলেছি। ব্যবধান বাড়ানোর কোন সুযোগই কাজে লাগাতে পারিনি।’
এই জয়ে বার্সেলোনা সেভিয়ার থেকে সাত ও এ্যাথলেটিকোর থেকে আট পয়েন্ট এগিয়ে গেল। ইতোমধ্যেই বার্সেলোনার থেকে ৯ পয়েন্ট এগিয়ে টেবিলের শীর্ষে থাকা রিয়াল মাদ্রিদ লা লিগার শিরোপা নিশ্চিত করেছে। মৌসুম শেষ হতে আর মাত্র একটি ম্যাচ বাকি রয়েছে।
গত সপ্তাহে বার্সেলোনার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলা নিশ্চিত হয়। এর অর্থ হচ্ছে জাভির প্রাথমিক লক্ষ্যপূরণ হয়েছে। কিন্তু ক্লাবের বর্তমান আর্থিক অবস্থা এখনো ভাল না হওয়ায় বিভিন্নভাবে আগামী মৌসুমেও পিছিয়ে পড়তে হতে পারে কাতালান জায়ান্টদের।
কাল বার্সেলোনার জয়টি এসেছে ৩২ বছর বয়সী অভিজ্ঞ স্ট্রাইকার অবামেয়াংয়ের হাত ধরে। জানুয়ারিতে আর্সেনাল থেকে বার্সেলোনায় যোগ দেবার পর এটি তার ১২ ও ১৩তম গোল। বার্সেলোনায় আসার পর থেকে তার দুর্দান্ত ফর্ম সাম্প্রতিক সময়ে কিছুটা হলেও স্তিমিত হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু যে আস্থা তার উপর বার্সেলোনা রেখেছিল তার আরো একবার প্রমান দিয়ে দলকে দাপুটে জয় উপহার দিয়েছেন অবামেয়াং। অবামেয়াংয়ের দুর্দান্ত ফর্মে আক্রমনভাগে আরেক ভরসা ডিপের ফর্ম কিছুটা হলেও নীচে নেমে গেলেও কাল সেল্টার বিপক্ষে উভয়ই ছিলেন অপ্রতিরোধ্য। ৩০ মিনিটে ওসমানে ডেম্বেলের সহায়তায় দারুন এক গোলে বার্সাকে এগিয়ে দেন ডিপে। এরপর ৪১ মিনিটে জর্ডি আলবার ক্রসে অবামেয়াং দলের ব্যবধান দ্বিগুন করেন।
বিরতির পর তিন মিনিটের মধ্যে আবারা ডেম্বেলের পাসে অবামেয়াং নিজের দ্বিতীয় গোল পূরণ করেন। দুই মিনিট পর অবশ্য এক গোল পরিশোধ করেন আসপাস। ডিপেকে ফাউলের অপরাধে মুরিলো মাঠ ছাড়লে সেল্টার আর ম্যাচে ফিরে আসা সম্ভব হয়নি।
এদিকে দিনের শুরুতে ভ্যালেন্সিয়াকে ৩-০ গোলে পরাজিত করে শীর্ষ চারে টিকে থাকার স্বপ্ন ধরে রেখেছে রিয়াল বেটিস। এই জয়ে চতুর্থ স্থানে তাকা এ্যাথলেটিকো মাদ্রিদের সাথে বেটিসের পয়েন্টের ব্যবধান এখন মাত্র তিন।