৭ দিন পর ট্রেনে টিকিট চেকিং শুরু করলেন সেই শফিকুল

৭ দিন পর ট্রেনে টিকিট চেকিং শুরু করলেন সেই শফিকুল

রাজশাহী

বরখাস্তের পাঁচ দিন পর এবং বরখাস্ত আদেশ প্রত্যহারের দুই দিন পর অবশেষে ট্রেনে টিকিট চেকিংয়ের মাধ্যমে নিয়মিত দায়িত্ব পালন শুরু করেছেন ভ্রাম্যমাণ টিকিট পরীক্ষক (টিটিই) শফিকুল ইসলাম। মঙ্গলবার সকাল ১১টা ৫৫ মিনিটে খুলনা থেকে চিলাহাটিগামী আন্তঃনগর রূপসা এক্সপ্রেস ট্রেনে টিটিই হিসেবে নিজের দায়িত্ব পালন শুরু করেন তিনি।

দায়িত্ব পালনের প্রথম দিনে তাকে বেশ উচ্ছ্বসিত দেখা গেছে। সকাল ১১টায় ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশনের টিটিই হেডকোয়ার্টারের নিজ কার্যালয়ে উপস্থিত হন তিনি। পরে ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন স্টেশনের মাস্টার তাকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দিলে তিনি দায়িত্ব পালন শুরু করেন।

এর আগে গত রোববার তার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করা হলেও এই দুই দিনে ট্রেনের টিকিট চেকিংয়ের জন্য দায়িত্ব পাননি তিনি।

মঙ্গলবার রূপসা ট্রেনে ওঠার পর নিজের অনুভূতি প্রকাশ করে টিটিই শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘রেলমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞ যে আমার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের ক্ষেত্রে তিনিই প্রথম অবদান রেখেছেন। আমি দায়িত্ব পালনের শুরুতেই রেলমন্ত্রী ও আমাদের ডিআরএম মহোদয়সহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানাই। আমি সাংবাদিক ভাইদের প্রতিও চির কৃতজ্ঞ।’

এর আগে রোববার দুপুরে আলোচিত এই ঘটনায় তদন্ত কমিটির কার্যক্রমের শুরুতেই টিটিই শফিকুল ইসলামের বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার করা হয়। এদিন টিটিইর বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার করে তাকে স্বপদে বহাল করেন পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ের ব্যবস্থাপক শাহীদুল ইসলাম। একই সঙ্গে তিনি বরখাস্তকারী পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ে বাণিজ্যিক কর্মকর্তা (ডিসিও) নাসির উদ্দিনকে শোকজ করেন। তাকে আগামী সাত দিনের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে।

গত শুক্রবার রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজনের স্ত্রী শাম্মি আক্তার মনির আত্মীয় পরিচয় দিয়ে বিনা টিকিটে ট্রেনে ভ্রমণ করায় তিন যাত্রীকে জরিমানাসহ ভাড়া আদায় করে সাময়িক বরখাস্ত হন খুলনা থেকে ঢাকাগামী আন্তঃনগর সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনের ভ্রাম্যমাণ টিকিট পরীক্ষক (টিটিই) শফিকুল ইসলাম। পরে মন্ত্রীর নির্দেশে তার বরখাস্ত আদেশ প্রত্যাহার করা হয়। এ নিয়ে সমকালসহ বিভিন্ন গণামধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হলে দেশব্যাপী সমালোচনার ঝড় ওঠে।