রংপুরে ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভুল হাত কেটে ফেলতে হলো শিশুটির

রংপুরে ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভুল হাত কেটে ফেলতে হলো শিশুটির

রংপুর

রংপুরের মিঠাপুকুরে ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভুল আলট্রাসনোগ্রাম রিপোর্টে মৃত সেই শিশুটির হাত কেটে ফেলতে হয়েছে। রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসকরা হাতটি কেটে ফেলেন। এ ঘটনায় শিশুটির বাবা থানায় অভিযোগ করেছেন। এর আগে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, সিভিল সার্জনসহ বিভিন্ন দপ্তরেও অভিযোগ দিয়েছেন তিনি।

এর আগে গত মার্চ মাসের মাঝামাঝি সময়ে চিথলী রামপুরা গ্রামের আইনুল ইসলামের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী আইনুন্নাহার আইডিয়াল ডায়াগনস্টিক সেন্টারে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য যান। সেখানে তার আলট্রাসনোগ্রাম করেন ডা. আহসান কবীর রনি।

তিনি জানান, আইনুন্নাহারের সন্তান গর্ভেই মারা গেছে। তিনি প্রসূতির জীবন রক্ষায় দ্রুত গর্ভপাতের পরামর্শ দেন। তার প্রতিবেদন নিয়ে আইনুন্নাহারকে গর্ভপাতের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানকার চিকিৎসক রিপোর্ট দেখে গর্ভপাতের ব্যবস্থা করেন। এ সময় ভ্রূণের নড়াচড়া টের পেয়ে দ্রুত আইনুন্নাহারকে অস্ত্রোপচার কক্ষে নিয়ে জীবিত বাচ্চা প্রসব করান। অস্ত্রোপচারের সময় নবজাতক ডান হাতে আঘাত পেয়েছিল বলে জানান চিকিৎসক।

নবজাতকের বাবা আইনুল ইসলাম বলেন, ‌‘ভুল রিপোর্টের কারণে আমার সন্তানকে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। আমি এর বিচার চাই।’ আলট্রাসনোগ্রাম করানো ডা. আহসান কবীর রনি বলেন, ‘ওই সময় গর্ভের বাচ্চাটিকে যে অবস্থায় পেয়েছি, সেভাবেই রিপোর্ট দিয়েছি।’ মিঠাপুকুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) জাকির হোসেন বলেন, অভিযোগ তদন্ত করা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে মিঠাপুকুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রাশেবুল ইসলাম বলেন, ‘অভিযোগের বিষয়টি সর্বোচ্চ গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হবে। অভিযোগ প্রমাণ হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’