হাবিপ্রবিতে অফিসারদের কর্মদক্ষতা বৃদ্ধিতে প্রশিক্ষণ কর্মশালা

হাবিপ্রবিতে অফিসারদের কর্মদক্ষতা বৃদ্ধিতে প্রশিক্ষণ কর্মশালা

দিনাজপুর

দিনাজপুর সংবাদাতাঃ হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (হাবিপ্রবি) ইন্সটিটিউট অব রিসার্চ এ- ট্রেনিং (আইআরটি) এর ব্যবস্থাপনায় প্রকল্প বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন শাখার অফিসারদের কর্মদক্ষতা বৃদ্ধির জন্য “ঋরহধহপরধষ গধহধমবসবহঃ” শীর্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটোরিয়াম-২ এ ওই প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন হাবিপ্রবির ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. কামরুজ্জামান, বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত ট্রেজারার প্রফেসর ড. বিধান চন্দ্র হালদার, সভাপতিত্ব করেন আইআরটি এর পরিচালক প্রফেসর ড. এস. এম. হারুন-উর-রশীদ। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন শাখার পরিচালক,উপ-পরিচালক,ডেপুটি-রেজিস্ট্রার, সহকারি পরিচালক/রেজিস্ট্রারসহ অন্যান্য অফিসারবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। রিসোর্স পার্সন ছিলেন পরিকল্পনা, উন্নয়ন ও ওয়ার্কস শাখার পরিচালক প্রফেসর ড. এ.টি.এম. শফিকুল ইসলাম, জেলা একাউন্টস অ্যান্ড ফিন্যান্স অফিসার মোঃ আব্দুস সালাম মিয়া।

এসময় হাবিপ্রবির ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. কামরুজ্জামান বলেন, যে কোন ধরণের ফিন্যানসিয়াল ম্যানেজমেন্টই বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ও জাতির সামনে বিশ্ববিদ্যালয়কে স্বচ্ছভাবে উপস্থাপনের ক্ষেত্রে মুখ্য ভূমিকা পালন করে।
তিনি বলেন, বিভিন্ন ধরণের প্রকল্প পরিচালনার ক্ষেত্রে জবাবদিহিতার কোন বিকল্প নেই, বিশেষ করে স্টক বুক, লেজার বুক, ক্যাশ বুক এ বইগুলো আমাদেরকে অবশ্যই গুরুত্ব সহকারে ব্যবস্থাপনা করতে হবে। এই ব্যবস্থাপনা যতো বেশি সুন্দর হবে সেই প্রকল্পের জবাবদিহিতাও ততো বেশি নিশ্চিত হবে।

তিনি বলেন, ২০৪১ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে চাচ্ছেন, এ ক্ষেত্রে শুদ্ধাচার চর্চাকে তিনি প্রাধান্য দিচ্ছেন। সেই শুদ্ধাচার চর্চার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হচ্ছে ফিন্যানসিয়াল ম্যানেজমেন্ট। আর এ ধরণের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে কর্মদক্ষতা বৃদ্ধি পাবে।