দিনাজপুরে প্রতিবন্ধীদের ভাতা ২ হাজার টাকাসহ ৭ দফা দাবীতে মানববন্ধন

দিনাজপুর

দিনাজপুর সংবাদাতাঃ ১১ এপ্রিল সোমবার দিনাজপুর প্রেসক্লাব সম্মুখ সড়কে সম্প্রীতি প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থা, উত্তরন প্রতিবন্ধী সংস্থ্যা ও দিনাজপুর জেলা প্রতিবন্ধী ফেডারেশন দিনাজপুরের যৌথ আয়োজনে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের ভাতা ২ হাজার টাকা, সরকারি- বেসরকারি ও স্ব-কর্মসংস্থানসহ ৭ দফা দাবী বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মানববন্ধন কর্মসূচী ও জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

মানববন্ধন কর্মসূচীতে বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর জেলা প্রতিবন্ধী ফেডারেশন এর সাধারন সম্পাদক অনামিকা পান্ডে, উত্তরন প্রতিবন্ধী সংস্থার সাধারন সম্পাদক মোঃ আশরাফুল আলম, সম্প্রীতি প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থার সাধারন সম্পাদক মোছাঃ হালিমা খাতুন সিডিডি’র প্রোগ্রাম অফিসার শৈলেন চন্দ্র রায়, প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় ও পূনর্বাসন সংস্থার সাধারন সম্পাদক বিলকিস আরা ফয়েজ, সবুজ বাংলা প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংগঠনের সাধারন সম্পাদক মোঃ বেলাল হোসেন, প্রতিবন্ধী নেতা মোঃ রাসেল রানা, শাহিন ইসলাম, আমিনা বেগম রুমু, মোঃ গোলাম হোসেন ও মাধুরী কুন্ডু। বক্তারা বলেন, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সংগঠন একটি জোট।

প্রতিবন্ধী মানুষের সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও অর্থনীতিক মুক্তির লক্ষ্যে জোট অগ্রণী ভুমিকা পালন করছে। তারই ধারাবাহিকতায় আজকের এই মানববন্ধন ও প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান কর্মসূচী পালন হচ্ছে। সম্প্রীতি প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থা সভাপতি তামজিদা পারভীন সীমা প্রতিবন্ধীদের ৭ দফা দাবী পাঠ করতে গিয়ে বলেন, ২০২২-২০২৩ জাতীয় বাজেটে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের ভাতা দু’হাজার টাকা করতে হবে।

প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের চাকুরীতে নিয়োগ এবং কর্মসংস্থান নিশ্চিতকরণে বিশেষ নীতিমালা প্রণয়ন করতে হবে। বাজেটে শতভাগ প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের শিক্ষা উপবৃত্তি ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তি ভাতা উভয় নিশ্চিত করতে হবে। বাজেটে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে ১০ শতাংশ প্রতিবন্ধী মানুষের নিয়োগে ৫ শতাংশ হারে ৫-৩ শতাংশ প্রতিবন্ধী কর্মী নিয়োগ দিয়ে ৩-১ শতাংশ কর ছাড়ের বিধন করতে হবে। সরকারি বেসরকারি সব সেবার তথ্য ভান্ডারে প্রতিবন্ধীতা বিভাজিত তথ্য চাই।

অবিলম্বে প্রতিবন্ধী ব্যক্তির উন্নয়ন অধিদপ্তর বাস্তবায়ন করতে হবে। প্রতিবন্ধী ব্যক্তি সংবেদনশীল বাজেট বাস্তবায়নে মন্ত্রণালয় ভিত্তিক বরাদ্দ দিতে হবে। মানববন্ধন শেষে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা দিনাজপুর জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করে।