পীরগাছায় গরম দুধের কড়াইেয়ে পড়ে শিশুর মৃত্যু

রংপুর

বাড়িতে খেলছিল ছোট্ট শিশু সাফি। কিন্তু সেই খেলাই যে শেষ পরিনতী কে জানতো। হোটেল ব্যবসায়ী পিতার গরম দুধে পড়ে গিয়ে অকালে নিভে গেলো শিশু সাফি (৩) জীবন প্রদীপ।

গত রোববার রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান শিশু সাফি। হৃদয়বিদায়ক ঘটনাটি রংপুরের পীরগাছা উপজেলার পারুল ইউনিয়নের আরাজি চালুনিয়া গ্রামে। নিহত সাফি ওই গ্রামের হোটেল ব্যবসায়ী সাহাবুল ইসলামের ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, পীরগাছার দেউতি বাজারে হোটেল ব্যবসা করতে সাহাবুল ইসলাম। গত শনিবার সন্ধ্যায় বিসমিল্লাহ হোটেল নামে ওই দোকানের জন্য নিজ বাড়িতে মিষ্টি তৈরির জন্য বড় কড়াইয়ে দুধ জ¦াল দিচ্ছিলেন সাহাবুল ইসলাম। বাড়িতে খেলছিল আদরের সন্তান সাফি। খেলতে খেলতে হঠাৎ দুধের কড়াইয়ে পড়ে যান সাফি। মাথা ও মুখ মন্ডলসহ উপরের অংশ ঝলসে যায় তার।

তাকে দ্রুত চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। কিন্তু খাদ্য নালি পুড়ে যাওয়ায় আর বাঁচানো গেলো না তাকে। গত রোববার রাত ৮ টার দিকে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন সাফি।

ওই রাতেই তাকে বাড়িতে নিয়ে আসলে হৃদয়বিদায়ক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় গোটা গ্রামজুড়ে। কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন স্বজন ও পাড়া-প্রতিবেশিরা। এরপর রাতে স্থানীয় কবরস্থানে দাফন করা হয় সাফিকে।

সোমবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেন পারুল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যাম তোফাজ্জল হোসেন। তিনি বলেন এরকম মৃত্যু মানুষকে পীড়া দেয়।