রংপুর পীরগঞ্জের কৃষি সাথী ফসল চাষে আগ্রহ বাড়ছে কৃষকদের

রংপুর

রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার কৃষি জমিগুলোতে এখন অল্প খরচে অধিক হারে চাষ হচ্ছে সাথী ফসল। কৃষি বিদের পরামর্শে চাষিরা মিলেমিশে সাথী ফসলের চাষে ঝুঁকছেন অনেকেই।

ফলে কম খরচে কৃষক বেশী মুল্যের ফসল ঘরে তুলতে পারছেন। উপজেলার কুমেদপুর ইউনিয়নের চন্ডিপুর গ্রামের মৃত্যু অহাব আলীর ছেলে রেজাউল করিম(সাদা) মিয়া বলেন তিনি ৫০ শতাংশ জমিতে প্রথম পর্যায়ে তুলার আবাদ করেন।

ওই জমি থেকে ৩০ মন তুলা বিক্রি করে আবারও অই জমিতে মিষ্টি কুমড়ার চাষ করেন। হালচাষের বাড়তি কোন খরচ নেই। কম খরচে মিষ্টি কুমড়ার চাষে সফলতার স্বপ্ন দেখছেন তিনি। হাইব্রীড মিষ্টিকুমড়া। একদিকে যেমন স্বাদ ঠিক তেমনি বাজারে চাহিদাও অনেক। তিনি আরও বলেন তুলার আবাদে ভালো ফলন পেয়েছে পাশাপাশি অই জমিতে মিষ্টি কুমড়ার চাষ করেছেন।

তবে অধিকাংশ জমিতে একবার হালচাষ করে এখন ২ থেকে ৩ টি ফসল ঘরে তুলছে আগ্রহী তিনি। পীরগঞ্জ তুলা উন্নয়ন বোর্ডের কটন ইউনিট অফিসার খাদেমুল বাসার বলেন, তারা অফিসের মাধ্যমে কৃষকদের প্রশিক্ষণ দিয়েছেন।

এখন কৃষকরা তুলা চাষের পাশাপাশি সাথী ফসলের চাষ করবেন। এছাড়াও তিনি আরও বলেন উপজেলার দু’টি ইউনিটের অধীনে এ বছর ১৫০ হেক্টর জমিতে তুলা চাষ হচ্ছে। কৃষক তুলা চাষ করে এখন ভুট্টা, মিষ্টি কুমড়া এবং চাল কুমড়ার চাষ করছেন।

তবে কৃষকদের যেমন তুলা চাষের আগ্রহ বাড়ছে সেই সাথে একই জমিতে রেলী বা সাথী ফসলের চাষও বাড়ছে।