বালিয়াডাঙ্গীতে যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম !

রংপুর

আনোয়ার হোসেন আকাশ, ঠাকুরগাঁও থেকেঃ আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে নুর ইসলাম নামে এক যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম করেছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার (৯ এপ্রিল) মধ্যরাতে ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার পাড়িয়া ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। আহত যুবলীগ নেতা নুর ইসলাম বর্তমানে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।

স্থানীয় এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কাজ শেষে প্রতিদিনের মতই বাড়ি ফিরছিলো যুবলীগ নেতা নুর ইসলাম। এসময় আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা দূর্বৃত্তরা দেশী অস্ত্র দিয়ে হামলা চালায়। কুপিয়ে যখম করা হয় পুরো শরীরে। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে তাকে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করান। উন্নত চিকিৎসার জন্য কর্তব্যরত চিকিৎসক রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করে। এ ঘটনার পর থেকেই এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

যুবলীগ নেতা নুর ইসলাম জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার পাড়িয়া ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন।

ওই ইউনিয়নের একাধিক রাজনৈতিক নেতা জানান, কয়েক মাস আগে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পাড়িয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু বক্কর এর সাথে নুর ইসলামের বাকবিতণ্ডা হয়। ধারণা করা হচ্ছে ওই জের ধরেই ঊর্ধ্বতন মহলের দিক নির্দেশনায় তাকে কুপিয়ে যখম করা হয়েছে। আমরা এ ধরনের কাজ কখনই আশা করিনা। তাকে হত্যার চেষ্টায় এভাবে কুপিয়ে যখম করা হয়েছে। জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারের ও শাস্তির দাবি জানিয়েন তারা।

এ বিষয়ে উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান আলী আসলাম জুয়েল জানান, ঘটনাটি শুনেছি। বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। দ্রুত আইনের আশ্রয়ে নেওয়া হবে।

কয়েক মাস আগে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত হওয়ায় সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মমিরুল ইসলাম সুমনের সাথে এ বিষয়ে একাধিকার যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন ধরেননি।

বালিয়াডাঙ্গী থানা পরিদর্শক ওসি) খায়রুল আলম ডন জানান বিষয়টি শুনেছি।পুলিশ বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।