ফুলবাড়ীতে ঘাসের বিষক্রিয়ায় তিনটি গরুর মৃত্যু

দিনাজপুর

দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের ফুলবাড়ীর উপজেলার চকশাহাবাজপুর গ্রামে জমির ঘাসের বিষক্রিয়ায় গত মঙ্গলবার (৫ এপ্রিল) রাতে তিনটি গরুর মৃত্যু এবং অপর দুইটি গরু ও দুইটি ছাগল গুরুতর অসুস্থ হয়েছে।

গ্রামবাসীরা জানান, চকশাহাবাজপুর গ্রামের আবদুল বারী মঙ্গলবার ইফতারীর পর নিজ জমিতে লাগানো ঘাস বাড়ীর পাঁচটি গরু ও দুইটি ছাগলকে খেতে দেন। রাত সাড়ে ৮টার দিকে আবদুল বারীর স্ত্রী আছলেমা বেগম গোয়াল ঘরে গিয়ে গরুগুলো তদারকি করেন। এ সময় দাঁড়িয়ে থাকা গরুগুলোর মধ্যে একটি গরু আকস্মিকভাবে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে।

ঘটনা দেখে আছলেমা বেগম চিৎকার দিলে বাড়ীর অন্যান্য লোকজনসহ প্রতিবেশিরা এসে মাটিতে লুটিয়ে পড়া গরুটিকে উঠানোর চেষ্ঠা করেন। কিন্তু এ সময় গরুটি মারা যায়। এর কিছুক্ষণ পরেই অন্য আরো একটি গরু একইভাবে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে মারা যায়। বিষয়টি নিয়ে আবদুল বারী উপজেলা প্রাণি সম্পদ অফিসে খবর দেন। খবর পেয়ে ভেটেনারী সার্জন ডা. নিয়ামত আলী ঘটনাস্থলে এসে অন্য গরু ও ছাগলের চিকিৎসা দেন। এ সময় অন্য আরো একটি গরুর মৃত্যু হয়। তবে চিকিৎসার কারণে অবশিষ্ট দুইটি গরু ও দুইটি ছাগল মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে গেছে।

গরুর মালিক আবদুল বারী বলেন, তিনি নিজের জমিতে ঘাস চাষাবাদ করেন এবং সেই ঘাস বাজানে বিক্রিসহ নিজের গবাদিপশুকে খাওয়ান। ঘাস খেয়ে গবাদিপশুগুলোর এমন অবস্থা অন্য কোন সময় হয়নি। তবে কি কারণে এমন হলো তা তিনি বলতে পারছেন না। তবে সন্দেহ করছেন পূর্ব শত্রুতা করে কেউ কেটে রাখা ঘাসে বিষ ছিটিয়ে দিতে পারে।

উপজেলা প্রাণি সম্পদ দপ্তরের ভেটেনারী সার্জন ডা. নিয়ামত আলী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এটি নাইট্রিক বিষক্রিয়ায় এমনটি হতে পারে।

উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা. শাহানুর আলম বলেন, তিনটি গরু মারা যাওয়ার ঘটনা তার জানা নেই। এটি ভেটেনারী সার্জন বলতে পারবেন।