নবাবগঞ্জ থেকে কেমিক্যাল মেশানো আমবিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলা এলাকা থেকে চলতি আমের মওসুমে কেমিক্যাল মেশানো আম দেশের বিভিন্ন স্থানে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এসব কেমিক্যাল মেশানো আম খেয়ে শিশু-কিশোরসহ দেশের জনগণের বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশংকা রয়েছে।

জানাযায়, ক্রেতারা কাঁচা আম পাইকারী মূল্যে বাগান মালিকদের নিকট থেকে ক্রয় করে তাতে যেন পচন ধরে নষ্ট না হয় সেই জন্য সেগুলিতে কেমিক্যাল মেশানো হচ্ছে।

স্থানীয়রা জানান, ক্রেতারা আম কেনার পর তার উপর কেমিক্যাল স্প্রে করে ফ্যানের বাতাসে শুকানোর পর প্লাষ্টিকের কার্টুনে কাগজের আবরন দিয়ে তা প্যাকেটজাত করে ট্রাকে ভরে রাজধানী সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। উপজেলার মাহমুদপুর ইউনিয়নের টুপিরহাট নামক স্থানে গিয়ে দেখা যায় আম কেনার জন্য সেখানে সারি সারি আড়ৎ বসানো হয়েছে। এসব আড়তে বিক্রেতারা কাঁচা আমই ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা মন দরে বিক্রি করছে।

আড়ৎদারদের নিকট আমে কেমিক্যাল মেশানোর বিষয়ে জানতে চাইলে তারা তা অস্বীকার করেন। তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন আড়ৎদার জানান বাহির থেকে যেসব আড়ৎদার এসে আম ক্রয় করছে তারা কিছুটা হলেও কেমিক্যাল মেশাচ্ছে। একটি ছোট্ট দোকানের ছেলে জানালেন আম ক্রয় করার পর সেই আমে ছোট মেশিন দিয়ে ওষধ ছিটানো হয়ে থাকে। তবে কি ওষধ ছিটানো হয় তা তারা কেউই জানেন না। অনুরূপ ভাবে ওই এলাকার বটতলী ও তেলীপাড়া নামক স্থানেও বেশ কিছু আড়ৎ বসানো হয়েছে বলে এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে।

এলাকার সাবেক একজন জনপ্রতিনিধির ভাষায় আমে দেদারছে কেমিক্যাল ব্যবহার করা হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে উপজেলা স্যানিটারী ইনস্পেক্টর ইব্রাহিম আলীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান কেমিক্যাল পরীক্ষা করার মত যন্ত্রপাতি তার নাই। বিষয়টির প্রতি প্রশাসনিক হস্তক্ষেপ করা দরকার বলে সচেতন মহল দাবী করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য