04 purnimaimage_160_21222চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা আর আগের মতো নেই। নিজেকে পুরোপুরি বদলে ফেলেছেন। এখন তিনি এক কন্যাসন্তানের মা। তাকে নিয়ে কাটছে তার অষ্টপ্রহর। পাশাপাশি সংসারের সব দায়িত্ব নিজ কাঁধেই নিয়েছেন তিনি। আপাতত অভিনয়ে ফেরা তার কোনো পরিকল্পনা নেই। পূর্ণিমা জানান, আগামী এক বছর তিনি অভিনয়ের নাম নিতে চান না। কারণ এ সময় সার্বক্ষণিক মেয়ের কাছেই থাকবেন তিনি।

তাছাড়া বড়পর্দায় ফেরা নিয়েও পূর্ণিমা দোটানায় রয়েছেন। কারণ মা হওয়ার পর দর্শকরা তাকে নায়িকা হিসেবে সেভাবে গ্রহণ করতে নাও পারেন। তাছাড়া পরিবার থেকেও চলচ্চিত্রে ফেরা নিয়ে বাধা রয়েছে। আর তিনিও পরিবারের বিরুদ্ধে যেতে চান না। পূর্ণিমা এখন একটা সুখী সংসার গড়ার স্বপ্ন দেখছেন। তবে জানা গেছে, বড়পর্দায় না ফিরলেও বছরখানেক পর ছোটপর্দায় ফিরতে পারেন পূর্ণিমা। কারণ ছোটপর্দায় কাজের ব্যাপারে তার পরিবারের কোনো চাপ নেই। তাছাড়া এই মাধ্যমে শিশুকন্যাকে নিয়ে কাজ করায় ততটা ঝুঁকিও থাকবে না।

পূর্ণিমা ১৩ এপ্রিল কন্যাসন্তানের জন্ম দেন। বর্তমানে তার বয়স প্রায় দুই মাস। এ প্রসঙ্গে পূর্ণিমা জানান, তার সন্তান যেন দিন দিন বেড়ে উঠছে। তাকে ঘিরেই তার সব স্বপ্ন-পরিকল্পনা। মা হওয়ার অনুভূতি ব্যক্ত করে পূর্ণিমা বলেন, ‘মা হওয়ার মধ্য দিয়েই নারী জীবনের পূর্ণতা আসে। নারী হিসেবে আমি সেই পূর্ণতা লাভ করেছি। আমার সন্তানের জন্য সবার দোয়া চাই।’ ২০০৭ সালের ৪ নভেম্বর পারিবারিকভাবে ফাহাদ জামিলের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন পূর্ণিমা। তবে মাঝে সংসার জীবনে টানাপড়েন চললেও বর্তমানে সুখেই আছেন তারা।

পূর্ণিমা সর্বশেষ ‘ছায়াছবি’ চলচ্চিত্রের শুটিং করেছেন। শিগগিরই ছবিটি মুক্তি পাবে বলে জানা গেছে। এদিকে ‘লোভে পাপ পাপে মৃত্যু’ ছবির মাধ্যমে শেষবারের মতো প্রেক্ষাগৃহে দেখা গেছে তাকে।’শত্রু ঘায়েল’ ছবিতে শিশুশিল্পী হিসেবে অভিনয় করলেও ১৯৯৮ সালে জাকির হোসেন রাজুর ‘এ জীবন তোমার আমার’ ছবির মধ্য দিয়ে চিত্রনায়িকা হিসেবে পূর্ণিমার যাত্রা শুরু হয়। এ পর্যন্ত অর্ধশতাধিক জনপ্রিয় ছবি দর্শকদের উপহার দিয়েছেন

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য