রংপুরে পুলিশ কনস্টেবলের মরদেহ উদ্ধার

রংপুরে পুলিশ কনস্টেবলের মরদেহ উদ্ধার

রংপুর

রংপুরের কাউনিয়ার উপজেলার বাজার সংলগ্ন সড়ক থেকে এক পুলিশ কনস্টেবলের মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। এখন পর্যন্ত ওই পুলিশ সদস্যর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যায়নি। তবে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ভোরে অজ্ঞাত কোনো গাড়ির চাপায় ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়েছে।

রোববার (৯ জানুয়ারি) সকালে কাউনিয়া উপজেলার রাজেন্দ্রবাজার এলাকা সংলগ্ন সড়ক থেকে তাজুল ইসলাম নামের ওই কনস্টেবলের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিহত তাজুল ইসলাম (৩৫) রংপুরের পীরগাছা থানায় কনস্টেবল পদে কর্মরত ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার গোপালের খামার গ্রামে। তিনি ওই এলাকার আবদুস সালামের ছেলে।

এক দিনের ছুটি শেষে নিজ কর্মস্থলে ফিরতে ভোরে মোটরসাইকেল নিয়ে বের হয়েছিলেন বলে জানান নিহতের ভাই রেজাউল করিম। গত শনিবার (৮ জানুয়ারি) কর্মস্থল থেকে এক দিনের ছুটি নিয়ে নিজ বাড়ি কুড়িগ্রামে যান তাজুল। তার সংসারে স্ত্রী ও দুই ছেলে-মেয়ে রয়েছে।

পীরগাছা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুল ইসলাম বলেন, রোববার ভোর সাড়ে ৬টার দিকে কুড়িগ্রাম থেকে মোটরসাইকেল নিয়ে নিজ কর্মস্থলে ফিরছিলেন তাজুল। পথিমেধ্য সকাল ৮টার দিকে অজ্ঞাত কোনো গাড়ি তাকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায় বলে ধারণা করা হচ্ছে। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান তাজুল।

এদিকে কাউনিয়া ফায়ার সার্ভিস স্টেশন ইনচার্জ শাহীন সরকার বলেন, সকাল সোয়া ৮টার দিকে এক অটোচালকের মাধ্যমে সড়কে মরদেহ পড়ে থাকার খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। পরে সেখান থেকে ওই পুলিশ কনস্টেবলের ক্ষতবিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

এ ব্যাপারে কাউনিয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুমুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নেওয়া হয়। পরে সেখান থেকে ময়না তদন্তের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করা হয়ছে। তবে এখন পর্যন্ত কীভাবে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে বা কোন গাড়ি চাপা দিয়েছে তা এখনো জানা যায়নি।