জেনে রাখুনঃ গর্ভনিরোধক বড়ি নিয়ে ভুল ধারণা গুলো

জেনে রাখুন

গর্ভনিরোধক বড়ি বর্তমানে গর্ভনিরোধকের সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম। তবে এই পদ্ধতি নিয়ে অনেকের মনেই কিছু ভ্রান্ত আশঙ্কা রয়ে গেছে। অনেকে মনে করেন গর্ভনিরোধক বড়ি খেলে মোটা হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা বাড়ে, গর্ভপাতের মতো সমস্যাও দেখা দেয়। কিন্তু সব ধারণাই কি আদৌ সত্য? সেগুলো একটু ভালোমতো জেনে নেয়া প্রয়োজন।

ক্যান্সারের সম্ভাবনা বাড়ে
একথা সত্য যারা ট্রাইফেজিক পিল খান তাদের স্তন এবং জরায়ুর ক্যান্সার হওয়ার আশঙ্কা বাড়ে। তবে সেটা খুবই সামান্য। অনেক ক্ষেত্রে কিছু বড়ি বেশ কিছু ধরণের ক্যান্সার প্রতিরোধেও সাহায্য করে।

যৌনরোগের আশঙ্কা কমানো সম্ভব
এটা একটি ভুল ধারণা। যৌনরোগ সংক্রমণ ঠেকাতে কনডম সবচেয়ে ভালো মাধ্যম। বড়ি খেয়ে যৌনরোগের আশঙ্কা কমানো সম্ভব না।

ওজন বাড়ায়
এটাও একটি জনপ্রিয় ভুল ধারণা। তবে আপনি কি ধরণের পিল খাচ্ছেন এবং কোন কোম্পানির পিলে কি উপাদান আছে তা ভালোমতো দেখে নিন। সচরাচর পিল খেলে বিপাকে কোনো বাধাবিঘ্নতার সৃষ্টি হয়না। তাতে ওজন বাড়ার আশঙ্কাও থাকেনা।

গর্ভপাতের সমস্যা হয়
এটাও ভ্রান্ত ধারণা। পিল খেলে ডিম্বাণু উৎপাদনের প্রক্রিয়া ব্যাহত হয়। কিন্তু গর্ভপাতের সাথে পিলের সম্পর্ক এখনো নিশ্চিতভাবে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

নির্দিষ্ট বয়সের পর পিল খেতে হয়না
নারীদের ঋতুচক্র যতদিন কার্যকর থাকবে ততদিন গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা থাকবেই। তাই নির্দিষ্ট বয়সের পর পিল খেতে নেই এটা ভুল ধারণা।

মা হওয়ার ক্ষমতা নষ্ট করে
গর্ভবতী হতে হলে অন্তত তিন থেকে চার মাস আগেই পিল খাওয়া বন্ধ করতে হবে। কারণ আপনার স্বাভাবিক ঋতুচক্র ফিরিয়ে আনতে শরীরকে সময় দিতে হবে। নাহলে নানা রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে৷