Samsung_watch_bg_934181705কোরিয়ান জায়ান্টের ‘ওয়াচ ফোন’ নামের ডিভাইসটি জুনে না হলেও জুলাইয়ে স্মার্টওয়াচের বাজারে থাকছে। সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে খবরটি জোড়ালভাবে প্রকাশ পায়। কিন্তু এখন পর্যন্ত একটি বিষয় অস্পষ্ট যে হাত ঘড়ির আকারের পর্দায় ওয়েব ব্রাউজিং এর মত প্রয়োজনীয় সব কাজের সমাধান কি দিতে পারবে স্যামসাং।

বাজারে কতিপয় ব্র্যান্ডের স্মার্টওয়াচ থাকলেও সেগুলোর অপর্যাপ্ত বৈশিষ্ট্যর বিষয়টি খুব সমালোচিত। যদিও স্যামসাং ‘ওয়াচ ফোন’ সম্পর্কে আপাতত কিছু জানায়নি তাই আসন্ন ডিভাইসটিতে ব্যাপক কৌতুহল রয়েছে।

তথ্য মতে, ওয়াচ ফোন কেবল ফোন কল রিসিভ এবং কাউকে কল করতে পারে এটাই শেষ কথা নয়। এছাড়াও ছবি তোলা, ইমেইল এমনকি এতে হার্ট রেট পর্যবেক্ষণের সুবিধাও থাকবে।

স্মার্টফোনের সঙ্গে তুলনা দিয়ে সম্প্রতিকালে বাজারে স্মার্টওয়াচে যুক্ত সুবিধাকে অপ্রতুল বলে গণ্য করা হচ্ছে।

তবে স্যামসাং পণ্যটিকে অনন্য বলার কারণ অ্যান্ড্রয়েড বাদে এতে প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব টিজান নামের অপারেটিং সিস্টেম যুক্ত করবে। ইতিমধ্যে প্রয়োজনীয় এ সফটওয়্যার তৈরিতে স্যামসাং বিপুল পরিমানে টাকা ঢেলেছে বলেও খবর আছে।

প্রতিবেদনটিতে জানানো হয়, এ মুহূর্তে কোরয়িান জায়ান্টের ওয়াচ ফোন যুক্তরাষ্ট্র, কোরিয়ান এবং ইউরোপের বাজারে ছাড়তে ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদের সাথে কথা চলছে। তবে প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে বিষয়টি অস্বীকার করা হয়েছে।

এদিকে স্মার্টওয়াচের বাজারে প্রবেশে গুগল প্রস্ত্তত। আগামী দুই মাসের মধ্যেই অ্যান্ড্রয়েড ক্ষমতার এ পণ্যটি উন্মুক্ত হওয়ার কথা আছে। আইওয়াচ নামের অ্যাপল পণ্যও গুজিবত। অ্যাপল পণ্যে শাস্থ্য বিষয়ক ফিচার থাকবে বলে ধারণা করছে আলোচকরা।

বর্তমানের এ ধাচের পণ্যে শাস্থ্য বিষয়ক যে সুবিধা আছে তা আংশিক কাজ করতে সক্ষম।

কিন্তু কোরিয়ান জায়ান্টের ওয়াচ বা স্মার্টফোন দুটোতেই হার্ট রেটের মত সেন্সর ফিচার থাকছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য