ব্রণহীন ঝকঝকে ত্বক পেতে

ব্রণহীন ঝকঝকে ত্বক পেতে

সাজগোজ টিপস

বিয়ের মৌসুম যথারীতি শুরু হয়ে গিয়েছে। গ্রীষ্মকাল পেরিয়ে শীতের শুরু বিয়ের জন্য একেবারে পারফেক্ট। তবে এ সময়ে আনন্দের পাশাপাশি আমাদের ত্বকে নানা ধরনের সমস্যাও দেখা যায়। সঠিক স্কিন কেয়ার প্রোডাক্ট এবং মেক আপ প্রোডাক্টের ব্যবহার কিন্তু আমাদের বিশেষ দিনটিকে আরও রঙিন করে তুলতে পারে। অন্যথায় বিয়ের আগে ত্বকের নানান সমস্যায় পড়তে হতে পারে। যেমন ব্রণ-প্রবণ ত্বক। ব্রণ এড়াতে বিয়ের আগে এই মৌসুমে কী কী বিষয়ে যত্ন নেওয়া উচিত জেনে নেওয়া যাক।

ত্বক পরিষ্কার করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ
ব্রণ-প্রবণ ত্বকের জন্য দিনে অন্তত দুইবার ত্বক পরিষ্কার করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এটি আসলে ত্বকের ছিদ্র পরিষ্কার করতে সাহায্য করে, মুখ থেকে অতিরিক্ত সিবাম এবং অন্যান্য ময়লা দূর করে। তবে সর্বদাই মৃদু এবং প্রাকৃতিক উপাদান সহ একটি হালকা ক্লিনজিং লোশন ব্যবহার করা উচিত।

জেল-ভিত্তিক সানস্ক্রিন ব্যবহার
ব্রড-স্পেকট্রাম সানস্ক্রিন ত্বককে সূর্য এবং দূষণকারী রশ্মি থেকে রক্ষা করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু যদি আমাদের ত্বক ব্রণ-প্রবণ হয় তখন ক্রিমের টেক্সচার কেমন হবে? সে ক্ষেত্রে জেল-ভিত্তিক সানস্ক্রিন ত্বকে কোনও অতিরিক্ত ওজন না বাড়িয়েই আমাদের ত্বককে সমানভাবে মসৃণ রাখবে।

দৈনন্দিন ব্যবহারের জন্য একটি হালকা ফাউন্ডেশন বাছাই করা
ফাউন্ডেশন ছাড়া মেক আপের বেস তৈরি করা যায় না। ভারী ফাউন্ডেশন আমাদের ত্বকের ছিদ্রগুলিকে ঢেকে দিয়ে মেক আপকে আরও বেশি প্রকট করে তোলে। তাই দৈনন্দিন ব্যবহারের জন্য হালকা বা মাঝারি কভারেজ ফাউন্ডেশন বেছে নেওয়া উচিত।

নিয়মিত মেকআপ স্পঞ্জ এবং ব্রাশ পরিষ্কার করা
যদি আমাদের মেক আপ ব্রাশ এবং মেক আপ স্পঞ্জ পরিষ্কার না হয় এবং সেটি অনেক দিন ধরে ব্যবহার করা হয় তাহলে আমাদের ত্বকে ব্রণ হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

ঘুমানোর আগে মেকআপ তুলে ফেলা
ঘুমানোর আগে মেক আপ তুলে ফেলা এবং ত্বক পরিষ্কার করা সর্বকালের সেরা ত্বকের যত্নের রুটিন। রাতে মেক আপ রাখলে আমাদের ত্বকের ছিদ্রগুলি বন্ধ হয়ে যায় এবং শেষ পর্যন্ত ব্রেক আউট হয়ে পিম্পল হতে পারে।

চট জলদি ব্রণের ট্রিটমেন্ট
যদি প্রায়শই ব্রণের সমস্যায় নাজেহাল হতে হয়, অ্যান্টি-ব্রণ জেল ব্যবহার করা যেতে পারে। রাতে ত্বক পরিষ্কার করার পরে এটি লাগানো যেতে পারে।