প্রেমিকার ভয়ে পালিয়ে থাকা প্রেমিক অবশেষ বিয়ে করলো

রংপুরে প্রেমিকার ভয়ে পালিয়ে থাকা প্রেমিক অবশেষ বিয়ে করলো

রংপুর

পীরগঞ্জে বিয়ের দাবিতে ৬দিন ধরে অবস্থান নেয়া প্রেমিকা ববিতা খাতুনকে অবশেষে বিয়ে করলো প্রেমিক তরিকুল ইসলাম (২৮)।

মঙ্গলবার সকালে উভয়ের পারিবারিক সম্মতিতেই এ বিয়ে সম্পন্ন হয়। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার মদনখালী ইউনিয়নের জুনিদেরপাড়া (জাফরপাড়া) গ্রামে।

এলাকাবাসী ও সদ্য বিবাহিত ববিতা জানায়, প্রায় ৫ বছর ধরে জুনিদেরপাড়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের পুত্র তরিকুল ইসলাম (২৮) এর সঙ্গে একই উপজেলার শানেরহাট ইউনিয়নের হরিরাম শাহাপুর গ্রামের দিনমজুর ইলিয়াস মিয়ার কন্যা ববিতা খাতুনের প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল।

তারা উভয়েই ঢাকায় গার্মেন্টস্ শ্রমিক হিসেবে কাজ করতো। একই এলাকার সুবাদে দু’জনার পরিচয়। পরিচয় থেকে প্রেম। ঘর বাধার স্বপ্ন ও বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তরিকুল ইসলাম প্রায়ই ওই যুবতীর সঙ্গে দৌহিক সম্পর্ক গড়াত।

শুধু তাই নয়, নতুন বাড়ি নির্মাণের প্রলোভনে ওই যুবতীর কাছ থেকে দু’লক্ষ টাকাও হাতিয়ে নেয় তরিকুল। সম্প্রতি তরিকুল ওই যুবতীতে ঢাকায় রেখে বাড়িতে চলে আসে এবং তার সঙ্গে সকল প্রকার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে।

একপর্যায়ে বিয়ের দাবিতে ববিতা গত ১৭ নভেম্বর দুপুরে প্রেমিক তরিকুলের বাড়িতে হাজির হয়। প্রেমিকার উপস্থিতি টের পেয়ে প্রেমিক তরিকুল ইসলাম কৌশলে রাতের অন্ধকারে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়।

পরদিন সকালে তার মা, বাবাসহ পরিবারের লোকজন ঘরে তালা লাগিয়ে বাড়ি ছেড়ে গা-ঢাকা দেয়। ‘হয় বিয়ে নয়তো আত্মহত্যা’ এমন আল্টিমেটাম দিয়ে ববিতা খাতুন প্রেমিক তরিকুলের আপন চাচা রাঙ্গা মিয়ার বাড়িতে অবস্থান নেয়। অবশেষে উভয়ের পারিবারিকভাবে সাড়ে ৩ লক্ষ টাকা দেন মোহর ধার্য করে তরিকুল- ববিতা’র বিয়ে সম্পন্ন হয়।