শিশুদের সঠিক খাদ্যাভাসে অভ্যস্ত করুন

শিশুদের সঠিক খাদ্যাভাসে অভ্যস্ত করুন

জেনে রাখুন

বাচ্চাদের ঠিকঠাক খাওয়ানো নিয়ে সমস্যা আছে অনেকেরই। বিশেষত ব্যস্ত পরিবারদের এই সমস্যা বেশি হয়। কিন্তু শিশুর বা বাচ্চাদের বিকাশের জন্যে ঠিকঠাক খাবার খাওয়া নিশ্চিত করতে হবে। কাজটি সহজ নয়। আমাদের মধ্যে আছে নানাবিধ ভুল ও ভ্রান্ত ধারণা। সেগুলো নিয়েই আজকে আমাদের এই আলোচনা।

জোর করে খাওয়াবেন না
বাচ্চাদের কখনই জোর করে খাওয়াবেন না। সচরাচর বাচ্চারা প্রাপ্তবয়স্কদের মতো নিয়ম করে খাবার খেতে পারেনা। তাই নিজের রুটিনের হিসেব করে জোর করে খাওয়াবেন না। বরং চেষ্টা করুন তাদের বোঝার।

বাচ্চাদের অংশগ্রহণ করান খাবারে
খাবারে অংশগ্রহণ করানো মানে শুধু খাবার খাওয়ার সময়ে নয়। বরং কি ধরণের খাবার তারা পছন্দ করে জেনে নিন। প্রতিদিন কি রান্না করা উচিত সে ব্যাপারে তাদেরও মতামত নিন। অবশ্যই রান্না করার সময়ে রান্নাঘরের সাথে তাদের পরিচয় করিয়ে দিন। এভাবে অভিজ্ঞতার মাধ্যমে খাবারের প্রতি তাদের আগ্রহ বাড়ান।

বাচ্চাদের বুঝুন
পাঁচ বছর বয়স পর্যন্ত বাচ্চারা খুঁতখুঁতে হয়। এজন্যে এটুকু নিশ্চিত করুন তারা খাবারের সময় প্রতিটি পদেরই কিছু না কিছু খেয়েছে। এতে তারা মোটামুটি সকল পুষ্টি পাবে।

বাচ্চাদের পরিচিত করান
হয়তো বাচ্চারা কোনো খাবার খেতে পছন্দ করেনা। তাই তাদের চারপাশে ওই খাবারের ব্যাপারে প্রশংসা, বা কোনো চমকপ্রদ গল্প বানান। আগ্রহ সৃষ্টি হলে তারা খাবে।

স্ন্যাকস দিবেন না
বাচ্চাদের কখনই স্ন্যাকস দিবেন না। চিপস, কোক, ক্যান্ডি দিয়ে পেট ভরাবেন না। এসব খেলে সচরাচর খিদে কমে যায়।

পুরষ্কারের প্রতিশ্রুতি দিবেন না
এটা খেলে ওটা দিবো এসব কখনো করবেন না। এতে বাচ্চাদের খাবারের অভ্যাস আরো নষ্ট হয়৷