কলম্বিয়ার মাদক সম্রাট ওতোনিয়েল গ্রেপ্তার

কলম্বিয়ার মাদক সম্রাট ওতোনিয়েল গ্রেপ্তার

আন্তর্জাতিক

কলম্বিয়ার শীর্ষ মাদক চোরাকারবারি এবং দেশটির সবচেয়ে বড় অপরাধী চক্রের নেতা দাইরো আন্তোনিও উসুগাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বিবিসি জানিয়েছে, কলম্বিয়ার এই ‘মাদক সম্রাট’ ওতোনিয়েল নামেই বেশি পরিচিত। শনিবার সেনাবাহিনী, বিমান বাহিনী ও পুলিশের এক যৌথ অভিযানে তাকে ধরা হয়।

ওতোনিয়েলকে ধরিয়ে দিতে আট লাখ ডলার পুরস্কার ঘোষণা করেছিল কলম্বিয়া সরকার। আর যুক্তরাষ্ট্র তার মাথার দাম রেখেছে ৫০ লাখ ডলার।

কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট ইভান দুকে এক ভিডিও বার্তায় বলেছেন, “এই শতাব্দীতে আমাদের দেশে মাদক পাচারকারীদের বিরুদ্ধে সবচেয়ে বড় ধাক্কা এটা। এটা শুধু ১৯৯০ এর দশকে পাবলো এসকোবারের পতনের সঙ্গেই তুলনীয়।”

ওতোনিয়েলকে (৫০) কলম্বিয়ার উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় আন্তিওকিয়া প্রদেশের উরাবা অঞ্চলে তার গ্রামীণ আস্তান থেকে আটক করা হয়েছে। এলাকাটি পানামা সীমান্তের কাছে। অভিযানের সময় এক পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন বলে প্রেসিডেন্ট দোকে জানিয়েছেন।

পরে কলম্বিয়ার সশস্ত্র বাহিনী একটি ছবি প্রকাশ করে যেখানে সৈন্যদের হ্যান্ডকাফ পরা ওতোনিয়েলকে পাহারা দিতে দেখা গেছে।

এ সাফল্য আসার আগে গত কয়েক বছরে এই অপরাধীকে ধরার জন্য নিরাপত্তা বাহিনী বেশ কয়েকটি নিস্ফল অভিযান চালিয়েছিল। ওই সব অভিযানে হাজার হাজার নিরাপত্তা কর্মকর্তা অংশ নিলেও কোনো ফল মেলেনি।

প্রায় ১০ বছর আগে নববর্ষের আগের রাতের এক পার্টিতে তার ভাই পুলিশের গুলিতে নিহত হওয়ার পর ওতোনিয়েল ‘গাল্ফ ক্ল্যান’ অপরাধী চক্রের প্রধান হন। আগে এ চক্রের নাম ‘উসুগা ক্ল্যান’ ছিল। ওতোনিয়েলের ভাই চক্রটির প্রধান ছিলেন।

কলম্বিয়ার নিরাপত্তা বাহিনীগুলো এই চক্রটিকে দেশটির সবচেয়ে প্রভাবশালী অপরাধী দল হিসেবে চিহ্নিত করেছে। আর যুক্তরাষ্ট্রের কর্তৃপক্ষগুলো চক্রটিকে ‘ব্যাপক অস্ত্রে সজ্জিত ও অত্যন্ত সহিংস’ বলে বর্ণনা করেছে।

কলম্বিয়ার অনেকগুলো প্রদেশে তৎপরতার চালানো এই চক্রটির ব্যাপক আন্তর্জাতিক যোগাযোগও আছে। তারা মাদক ও মানবপাচার, অবৈধ সোনার খনি পরিচালনা ও চাঁদাবাজির সঙ্গে জড়িত বলে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

এই চক্রটির ১৮০০ সশস্ত্র সদস্য আছে বলে ধারণা করা হয়। এদের অধিকাংশকেই কট্টর ডানপন্থি আধাসামরিক গোষ্ঠীগুলো থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে। আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, হন্ডুরাস, পেরু ও স্পেনের মতো দূরবর্তী দেশগুলোতেও এই চক্রের সদস্যরা গ্রেপ্তার হয়েছে।

কলম্বিয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্র এবং আরও দূরবর্তী রাশিয়া পর্যন্ত মাদক চোরাচালানে ব্যবহৃত রুটের অনেকগুলো এই অপরাধী দলটি নিয়ন্ত্রণ করে।

তবে কলম্বিয়া সরকারের বিশ্বাস তাদের সাম্প্রতিক তৎপরতায় চক্রটির অনেক ক্ষমতাই ধ্বংস হয়েছে এবং তাদের অনেক নেতৃস্থানীয় সদস্য প্রত্যন্ত জঙ্গল এলাকায় লুকিয়ে থাকতে বাধ্য হচ্ছে।

ওতোনিয়েলের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রে ডজন ডজন কোকেনের চালান পাঠানোসহ পুলিশ কর্মকর্তাদের হত্যা এবং শিশুদের দলে ভেড়ানোর অনেক অভিযোগ আছে। ২০০৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রে অভিযুক্ত হওয়া ওতোনিয়েলকে সে দেশটির কাছে হস্তান্তর করা হতে পারে আর তাতে শেষ পর্যন্ত নিউ ইয়র্কের আদালতে তাকে দেখা যেতে পারে বলে জানিয়েছে বিবিসি।