শিক্ষিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ; আটক-২

দিনাজপুর

দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের বোচাগঞ্জে এক শিক্ষিকাকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের হয়েছে। এই ঘটনায় ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ। ওই আসামীরা শিক্ষিকাকে তুলে নিয়ে যাওয়ার কথা স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করেছেন।

বোচাগঞ্জ থানার ওসি মাহমুদুল হাসান বলেন, শিক্ষিকার দায়ের করা মামলায় ২ জনকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। সেখানে আসামীরা ওই শিক্ষিকাকে তুলে নিয়ে যাওয়ার কথা স্বীকার করেছেন। তবে ধর্ষণের কথা তারা স্বীকার করেননি, এখন মেডিকেল রিপোর্ট আসলেই বিষয়টি পরিস্কার হবে।

গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলেন- উপজেলার সুলতানপুর আবাসনের নুর ইসলামের ছেলে মামুনুর রশিদ (২৬) ও সেনিহারী গ্রামের সাহিজ উদ্দিনের ছেলে সুজন আলী (২৫)।

থানা সূত্রে জানা যায়, গত ১৮ অক্টোবর সোমবার একটি শিশু একাডেমির শিক্ষিকা পায়ে হেটে নিজ কর্মস্থলে যাওয়ার পথে ওই দুইজন পথরোধ করে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে যায়। পরে তারা একটি আখ ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে পালাক্রমে ধর্ষন করে পালিয়ে যায়। পরে বিষয়টি জানাজানি হয়ে গেলে এলাকাবাসী ওই দুইজনকে বুধবার রাতে আটক করে বোচাগঞ্জ থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ তাদেরকে আটক করে নিয়ে যায়। এই ঘটনায় ভিকটিম নিজে বাদী হয়ে বুধবার রাতে ২ জনকে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন (মামলা নং-০৭)। ওই মামলায় আসামীদেরকে গ্রেফতার দেখিয়ে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হয়। সন্ধ্যায় তারা নিজেদের দোষ স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি মুলক জবানবন্দী প্রদান করেছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মাহবুবুর রহমান সরকার জানান, ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য ভিকটিমকে আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।