বঙ্গবন্ধু সেতুর উভয় পাশে ৫০ কিলোমিটার যানজট

বঙ্গবন্ধু সেতুর উভয় পাশে ৫০ কিলোমিটার যানজট

রাজশাহী

বঙ্গবন্ধু সেতুর উভয় পাশে ৫০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে সরেজমিনে গিয়ে এ চিত্র দেখা যায়।

জানা গেছে, বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব পাড় থেকে হাতিয়া পর্যন্ত ঢাকামুখী ১০ কিলোমিটার ও পশ্চিম পাড় থেকে চান্দাইকোনা পর্যন্ত উত্তরাঞ্চলমুখী ৪০ কিলোমিটার এলাকায় এ যানজট রয়েছে। জরাজীর্ণ নলকা সেতু ও এর দুপাশে সড়কের খানাখন্দ থাকায় এ যানজটের সূত্রপাত হয়।

এদিকে সেতুর পশ্চিম পাড়ে যানবাহন আটকে থাকায় বৃহস্পতিবার ভোর ৪টা থেকে টোল আদায় বন্ধ রেখেছে বঙ্গবন্ধু সেতু কর্তৃপক্ষ। এতে করে যানজট আরও ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে।

অন্যদিকে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম সংযোগ মহাসড়কসহ সিরাজগঞ্জের ৩টি রুটে অন্তত ৪০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানজট সৃষ্টি হয়েছে। ভয়াবহ যানজটে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে এসব রুটে। বেশ কয়েকদিন ধরে মহাসড়কটিতে থেমে থেমে যানজট থাকলেও বুধবার (১৩ অক্টোবর) রাত থেকে বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) সকালে তা তীব্র আকার ধারণ করে।

বেশ কয়েকদিন ধরে মহাসড়কটিতে থেমে থেমে যানজট থাকলেও বুধবার রাত থেকে তা তীব্র আকার ধারণ করে। বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম মহাসড়কের সায়দাবাদ থেকে হাটিকুমরুল গোলচত্বর পর্যন্ত ১৪ কিলোমিটার, হাটিকুমরুল গোলচত্বর থেকে ভুঁইয়াগাঁতী পর্যন্ত ১৫ কিলোমিটার ও হাটিকুমরুল গোলচত্বর থেকে রাজশাহী রুটের নাঈমুড়ী বাজার পর্যন্ত ৬ কিলোমিটার ছাড়িয়ে গেছে যানজট। এছাড়াও বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব পাড় ঢাকার দিকে গাড়ির সারি ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছে।

হাটিকুমরুল হাইওয়ের সার্জেন্ট ফয়সাল আহমেদ বলেন, নলকা সেতুর কারণে চরম দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে যাত্রীদের। হাটিকুমরুল গোলচত্বর ছাড়িয়ে যানজট ভুঁইয়াগাঁতী বাজার পর্যন্ত ছড়িয়ে গেছে। অপরদিকে রাজশাহী রুটের গোঁজা ব্রিজ পার হয়েছে। আমরা যানজট নিরসনের চেষ্টা করছি।

সিরাজগঞ্জ জেলা ট্রাফিক ইন্সপেক্টর সালেকুজ্জামান সালেক বলেন, মহাসড়কে খানাখন্দের কারণে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। পশ্চিমে পাঁচলিয়া ও পূর্বদিকে ঝাঐল ওভারব্রিজ পর্যন্ত যানজট রয়েছে। রাস্তা খারাপের কারণে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।