পাবনার চাটমোহরে জমি বিক্রির অপচেষ্টার অভিযোগে একজন আটক

পাবনার চাটমোহরে জমি বিক্রির অপচেষ্টার অভিযোগে একজন আটক

রাজশাহী

পাবনার চাটমোহরে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও ভূমি অফিসের কানুনগো’র ভুয়া নাম ব্যবহার ও স্বাক্ষর জাল করে খারিজ খতিয়ান ও ডিসিআর তৈরি করে জমি বিক্রির অপচেষ্টার অভিযোগে একজনকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃত হলেন উপজেলার ফৈলজানা ইউনিয়নের শরৎগঞ্জ গ্রামের মৃত আঃ রাজ্জাক মুন্সির ছেলে আঃ হামিদ মুন্সি।

এ ব্যাপারে চাটমোহর সাব রেজিস্ট্রিার অফিসের অফিস সহকারী মোঃ নুরুল হুদা চাটমোহর থানায় মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) রাতে একটি মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ বুধবার (১৩ অক্টোবর) দুপুরে আটক ব্যক্তিকে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।

অভিযোগে জানা গেছে,আঃ হামিদ মুন্সি বেশ কিছুদিন আগে তার নিজ নামীয় ৭১ শতাংশ জমির মূল দলিল,খাজনা,খারিজ ও ডিসিআরের মূল কপি রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক ফৈলজানা শাখায় জমা রেখে ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা ঋণ গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে ঋণ পরিশোধ না করে ফৈলজানা ইউনিয়ন ভূমি অফিসের কর্মকর্তা নাকিবুল্লাহর যোগসাজসে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) বাবুল আকতার ও ভূমি অফিসের কানুনগো মোঃ জাহাঙ্গীর আলমের নাম ও সিল ববহার করে জাল স্বাক্ষর করে খারিজ খতিয়ান ও ডিসিআর তৈরি করেন। অথচ বাবুল আকতার ও জাহাঙ্গীর আলম নমের কোন কর্মকর্তা চাটমোহরে কখনও ছিলেন না।

এরপর আঃ হামিদ মুন্সি পাবনার আতাইকুলা থানার ইসলামপুর গ্রামের আঃ গফুরের ছেলে লোকমান হাকিমের কাছে জমি বিক্রি করার জন্য দলিল লেখক মোঃ শহীদুল্লাহর মাধ্যমে দলিল দাখিল করেন। অফিস সহকারী মোঃ নুরুল হুদার বিষয়টি সন্দেহ হয়। তিনি বিষয়টি সাব রেজিস্টারকে জানান। সাব রেজিস্ট্রার থানা পুলিশকে অবগত করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে আঃ হামিদ মুন্সিকে আটক করে। আঃ হামিদ ডিসিআর ও খারিজ খতিয়ানের কাগজ জাল জালিয়াতির কথা স্বীকার করেন।

চাটমোহর থানার ওসি মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন জানান,জাল কাগজপত্র তৈরি দায়ে আঃ হামিদ মুন্সিকে আটক করা হয়েছে। থানায় মামলা হয়েছে। আটককৃতকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।