বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি স্বস্তিদায়ক

বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি স্বস্তিদায়ক

জাতীয়

বাংলাদেশের করোনা ভ্যাকসিন সার্টিফিকেটকে স্বীকৃতি দিয়েছে যুক্তরাজ্য। শুক্রবার যুক্তরাজ্যের বাংলাদেশ হাইকমিশন থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

হাইকমিশন জানিয়েছে, ব্রিটেনের পরিবহন বিভাগ এক ঘোষণায় জানায়, দেশটির অনুমোদিত কোভিড-১৯ টিকার তালিকা ও সনদ স্বীকৃতিতে বাংলাদেশকে যুক্ত করা হয়েছে। সোমবার থেকে স্বীকৃতির এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেনও শুক্রবার ভোররাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বার্তায় এ খবর জানিয়েছেন।

বার্তায় তিনি বলেন, বাংলাদেশের ভ্যাকসিন সার্টিফিকেশন এখন ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক স্বীকৃত। আমাদের মিশন তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে আমাদের প্রক্রিয়া বর্ণনা করেছে এবং এখন তারা আমাদের ভ্যাকসিন সার্টিফিকেশনকে স্বীকৃতি দিয়েছে। এটি সোমবার ভোর ৪টা থেকে কার্যকর হবে।

ব্রিটেনের এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম বলেন, এই সিদ্ধান্ত বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে উষ্ণ দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের প্রতিফলন। এটি দুদেশের মধ্যে ব্যবসা ও ভ্রমণের ক্ষেত্রে অবশিষ্ট বাধা দূর করার জন্য হাইকমিশনের স্থায়ী কূটনৈতিক প্রচেষ্টার ফল।

হাইকমিশনার জানান, সোমবার ভোর ৪টা থেকে যুক্তরাজ্য-অনুমোদিত টিকার সম্পূর্ণ ডোজ নেওয়াদের আর ১০ দিনের হোটেল বা হোম কোয়ারেন্টাইন অথবা কোভিড-১৯ প্রি-প্রস্থান পরীক্ষার প্রয়োজন পড়বে না। তবে ব্রিটেনে আসার পর দ্বিতীয় দিন বা তার আগে কোভিড-১৯ পরীক্ষা করে নেওয়া উচিত। টিকা নেওয়ার প্রমাণ হিসেবে প্রত্যেক ভ্রমণকারীদের বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষের দেওয়া টিকার সনদ প্রদর্শন করতে হবে। যেসব ভ্রমণকারীরা ব্রিটেনের অনুমোদিত টিকার পূর্ণ ডোজ সম্পন্ন করেননি তাদের ১০দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। তাদের কোয়ারেন্টাইন চলা অবস্থায় দ্বিতীয় ও অষ্টম দিন কোভিড-১৯ পরীক্ষা করতে হবে।

গণটিকা কার্যক্রমঃ দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে সরকার করোনার গণটিকা কার্যক্রম ছড়িয়ে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় তৃতীয় বারের মতো বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় রাঙ্গামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার দুর্গম অঞ্চল বড়থলি ইউনিয়নে টিকা প্রদানের লক্ষ্যে সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার যোগে ৬ সদস্যের একটি মেডিকেল টিম প্রেরণ করা হয়েছে।

গণটিকা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার রাঙ্গামাটির পার্বত্য জেলার প্রত্যন্ত ও দূর্গম অঞ্চলে বসবাসকারী বিলাইছড়ি উপজেলা পরিষদের অন্তর্গত বড়থলি ইউনিয়নের প্রায় ৭০০ পাহাড়ি জনগোষ্ঠী টিকা পাবে।

বিলাইছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, এইবার দূগর্ম বড়থলি ইউনিয়ন এর রাইখ্যং লেক সংলগ্ন পুকুরপাড়া এলাকায় গণটিকার আওতায় সিনোফার্মের ১ম ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে।

এভাবে দূগর্ম এলাকায় সেনাবাহিনীর সার্বিক ব্যবস্থাপনায় টিকা কার্যক্রম পরিচালনা করতে পেরে জেলা প্রশাসন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা সেনাবাহিনীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। দেশের প্রয়োজনে পার্বত্য চট্টগ্রামে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর এমন সহযোগিতা ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে বলে জানান সেনা কর্মকর্তারা।

সেরামের টিকাঃ বাংলাদেশকে ১০ লাখ ডোজ করোনার টিকা পাঠাতে সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়াকে অনুমতি দিয়েছে ভারত সরকার। দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র এই তথ্য জানিয়েছে। বাংলাদেশ ছাড়াও নেপাল এবং মিয়ানমারকেও একই পরিমান টিকা দেওয়া হবে।

অ্যাস্ট্রাজেনেকা টিকা সরবরাহের চুক্তির কথা উল্লেখ করে সেরামের পরিচালক (সরকার ও নিয়ন্ত্রক বিষয়ক) প্রকাশ কুমার সিং গত আগস্টে ভারতের স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মান্দাভিয়ার কাছে টিকা রপ্তানির অনুমতি চেয়ে আবেদন করেছিলেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী মান্দাভিয়া গত ২০ সেপ্টেম্বর এক ঘোষণায় জানিয়েছিলেন যে ভারত ‘ভ্যাকসিন মৈত্রী’ কর্মসূচির আওতায় অক্টোবরে উদ্বৃত্ত টিকা রপ্তানি পুনরায় শুরু করবে।

একটি সূত্র বার্তা সংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছে, ‘ভ্যাকসিন মৈত্রী’র অধীনে অক্টোবরে বাংলাদেশ, নেপাল ও মিয়ানমারকে টিকা দেবে সেরাম। বাংলাদেশে কোভিশিল্ড টিকা সরবরাহে সেরাম বেক্সিমকোর সঙ্গে চুক্তি করেছিল। এ বছরের মার্চ, এপ্রিল ও মে মাসে ভারতে করোনা তীব্র আকার ধারণ করলে টিকা সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছিল সেরাম।

এদিকে বাংলাদেশকে ২ লাখ ১ হাজার ৬০০ ডোজ অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিন উপহার দিয়েছে মালদ্বীপ। মালদ্বীপস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের কাছে এ ভ্যাকসিন হস্তান্তর করা হয়।

বুধবার মালদ্বীপের স্বাস্থ্যমন্ত্রী আহমেদ নাসিম এবং দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশ হাই কমিশনার রিয়ার অ্যাডমিরাল মো. নাজমুল হাসানের মধ্যে এ বিষয়ে একটি দ্বিপক্ষীয় চুক্তিপত্র স্বাক্ষরিত হয়।

দেশে টিকা প্রয়োগঃ দেশে এ পর্যন্ত ৫ কোটি ৩৬ লাখ ২৪ হাজার ৫৩৮ ডোজ করোনা টিকার প্রয়োগ হয়েছে। প্রথম ডোজ টিকা নিয়েছেন ৩ কোটি ৫৮ লাখ ২৯ হাজার ৪১৮ জন এবং দ্বিতীয় ডোজ টিকা নিয়েছেন ১ কোটি ৭৭ লাখ ৯৫ হাজার ১২০ জন। বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মিজানুর রহমান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

এখন পর্যন্ত প্রথম ডোজ টিকা গ্রহীতাদের মধ্যে পুরুষ ১ কোটি ৯২ লাখ ৫৪ হাজার ৭৩৫ জন আর নারী ১ কোটি ৬৫ লাখ ৭৪ হাজার ৬৮৩ জন। দ্বিতীয় ডোজ টিকা গ্রহীতাদের মধ্যে পুরুষ ১ কোটি ১ লাখ ৪৪ হাজার ৪০৪ জন আর নারী ৭৬ লাখ ৫০ হাজার ৭১৬ জন। এর মধ্যে অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা কোভিশিল্ড প্রয়োগ হয়েছে ১ কোটি ৩১ লাখ ৯৬ হাজার ৬৫০ ডোজ। ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকা প্রয়োগ হয়েছে ২ লাখ ৬২ হাজার ৩৭৩ ডোজ। চীনের সিনোফার্মের টিকা প্রয়োগ হয়েছে ৩ কোটি ৫০ লাখ ২১ হাজার ৩৭ ডোজ। আর মডার্নার টিকা প্রয়োগ হয়েছে ৫১ লাখ ৪৪ হাজার ৪৭৮ ডোজ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য থেকে জানা যায়, বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত ৫ কোটি ২৪ লাখ ১৭ হাজার ৬৭৪ জন করোনা টিকার জন্য নিবন্ধন করেছেন। এর মধ্যে জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর দিয়ে ৫ কোটি ১৭ লাখ ২৯ হাজার ২১০ জন এবং পাসপোর্ট নম্বর দিয়ে ৬ লাখ ৪৪ হাজার ৪৬৪ জন নিবন্ধন করেছেন।

করোনায় মৃতের সংখ্যা কমে এক অঙ্কে: দেশে করোনা সংক্রমণে মৃতের সংখ্যা কমে এক অঙ্কে দাঁড়িয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাঁদের মধ্যে নারী চার ও পুরুষ তিনজন। এ সময়ে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ৬৪৫ জন।

শুক্রবার বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়। আগের দিন ১২ জনের মৃত্যু এবং ৬৬৩ জন রোগী শনাক্তের তথ্য দিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় মোট ২৩ হাজার ২০৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষার বিপরীতে রোগী শনাক্তের হার ২ দশমিক ৭৭।

সংক্রমণের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত দেশে মোট ১৫ লাখ ৬১ হাজার ৪৬৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৭ হাজার ৬৫৪ জনের। আর সুস্থ হয়েছেন ১৫ লাখ ২২ হাজার ৫৯১ জন।

করোনা পরিস্থিতি স্বস্তিদায়কঃ দেশে করোনা মহামারি পরিস্থিতি স্বস্তিদায়ক বলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মুখপাত্র ও পরিচালক (রোগ নিয়ন্ত্রণ বিভাগ) অধ্যাপক ডা. মো. নাজমুল ইসলাম সম্প্রতি জানিয়েছেন।

ডা. নাজমুল বলেন, সংক্রমণ ও মৃত্যুর পরিসংখ্যান বিবেচনায় করোনার সার্বিক পরিস্থিতি অত্যন্ত স্বস্তিদায়ক। গত দুই-তিন সপ্তাহে অব্যাহতভাবে সংক্রমণ কমছে, যা স্বস্তি ফিরিয়ে আনছে সবার মনে।

তিনি বলেন, ‘সারাদেশে এক লাখ ৭৩ হাজার ৩১৫টি নমুনা পরীক্ষা হয়, যা বিগত সপ্তাহের চেয়ে সাত হাজার ৫৮১টি কম। একই সময় শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ছয় হাজার ৫৭৩ জন, যা আগের সপ্তাহের চেয়ে প্রায় ২৩ শতাংশ কম। এ পর্যন্ত মোট ১৫ লাখ ৫৭ হাজার ৩৪৭ রোগী শনাক্ত হয়েছে। গত এক সপ্তাহে পূর্ববর্তী সপ্তাহের চেয়ে ৪৯ জন কম রোগীর মৃত্যু হয়, অর্থাৎ পূর্ববর্তী সপ্তাহের তুলনায় ২৩ শতাংশ মৃত্যু কমেছে।’

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মুখপাত্র আরও জানান, ঢাকা জেলাতে সর্বাধিক পাঁচ লাখ ২০ হাজারের বেশি রোগী শনাক্ত হয়। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৯৯ হাজারেরও বেশি রোগী শনাক্ত হয় চট্টগ্রাম জেলায়। শীর্ষ করোনা সংক্রমিত জেলাগুলোর মধ্যে নোয়াখালীতে সবচেয়ে কম ২২ হাজার ৮৮০ জন রোগী শনাক্ত হয়।

মডার্নার টিকা বাতিলঃ করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে উদ্ভাবিত মর্ডানার টিকা বিশ্বব্যাপী সমাদৃত। অথচ এই টিকার প্রয়োগ স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইউরোপের দেশ ডেনমার্ক।

প্রতিবেদনে বলা হয় সম্ভাব্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার আশংকায় ১৮ বছরের কম বয়সীদের মর্ডানার টিকা প্রয়োগ স্থগিতের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ডেনমার্ক। ইউরোপের একাধিক দেশে মডার্নার ভ্যাকসিন নেওয়ার পর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় হৃদপি-ের পেশি বা হৃদপি-ের চারপাশের থলিতে প্রদাহের ঝুঁকি বেড়ে যাওয়ার ইঙ্গিত মিলেছে। মূলত এমন ইঙ্গিত পাওয়ার পরই এমন সিদ্ধান্ত নেয় ডেনিশ কর্তৃপক্ষ এ প্রসঙ্গে ডেনিশ স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, চারটি নরডিক দেশ থেকে সংগৃহীত তথ্য অনুযায়ী, মডার্না টিকায় হার্টের প্রদাহ বাড়ার ঝুঁকি রয়েছে। যদিও এই ধরনের ঘটনা খুবই কম।

নরডিক দেশগুলো থেকে পাওয়া প্রাথমিক তথ্য ইউরোপীয় মেডিসিন এজেন্সি (ইএমএ)-এর সংশ্লিষ্ট কমিটিতে পাঠানো হয়েছে। সেখানে পুরো বিষয়টি পর্যালোচনা করা হবে। ডেনমার্কের পর ইউরোপের আরও বিভিন্ন দেশে তরুণদের জন্য মডার্নার টিকা প্রয়োগ স্থগিত করা হতে পারে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর গত বছরের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে। এর আগে একই বছরের ২০ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে সংস্থাটি।