শারদীয় দূর্গোৎসব যথাযথ নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের দাবীতে দিনাজপুরে স্মারকলিপি প্রদান

দিনাজপুর

দিনাজপুর সংবাদাতাঃ সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সার্বজনীন শারদীয় দূর্গোৎসব পালনের লক্ষ্যে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের যথাযথ নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের দাবিতে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখা জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছে।

৬ অক্টোবর বুধবার সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সার্বজনীন শারদীয় দূর্গোৎসব পালনের লক্ষ্যে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের যথাযথ নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের দাবিতে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার স্মারকলিপি গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক খালেদ মোহাম্মদ জাকী ও পুলিশ সুপারের পক্ষে স্মারকলিপি গ্রহণ করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শচীন চাকমা।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার সভাপতি কানিজ রহমান ও সাধারণ সম্পাদক ড. মারুফা বেগম স্বাক্ষরিত স্মারকলিপিতে বলা হয় বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দীর্ঘ ৫০ বছর যাবৎ নারীর ক্ষমতায়ন ও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠা এবং পরিবার-সমাজ-রাষ্ট্রের সর্বস্তরেই নারী, পুরুষ, জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সমতা ভিত্তিক সমাজ ও রাষ্ট্র গঠন এবং অসাম্প্রদায়িক, গণতান্ত্রিক সংস্কৃতি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বহুমূখী ধারাবাহিক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

আগামী ১১ অক্টোবর থেকে শুরু হতে যাচ্ছে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় অনুষ্ঠান শারদীয় দূর্গোৎসব। বাংলাদেশ একটি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ হিসেবে বিভিন্ন ধর্মের মানুষের সহাবস্থান নিশ্চিত করে যা এর ঐতিহ্যর অঙ্গ, যেখানে সবাই নির্বিঘেœ নিজ নিজ ধর্মীয় উৎসব পালন করে থাকে। কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় অতীতে বিভিন্ন সময়ে আমরা দেখেছি শারদীয় দূর্গোৎসবের সময়ে বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন ব্যক্তি, গোষ্ঠী দ্বারা সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের জনগণ নানাভাবে আক্রান্ত হয়। বিশেষ স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠীর প্ররোচনায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের উপর নানা ধরনের অপতৎপরতা লক্ষ্য করা যায়।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সার্বজনীন শারদীয় দূর্গোৎসব পালনের লক্ষ্যে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের যথাযথ নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের জন্য বিশেষ অনুরোধ জানানো যাচ্ছে। এই সময় এধরনের সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনা ঘটার বা ঘটনার আশঙ্কা থাকলে এই ধরনের চরম দূর্ভাগ্যজনক, অমানবিক ঘটনা প্রতিরোধ ও প্রতিকারে তাৎক্ষণিক যথোপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিশেষ অনুরোধ জানাচ্ছে। এলাকায় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে আপনার উদ্যোগী ভূমিকা গ্রহণ একান্ত কাম্য।

আমরা জানি ধর্ম, বর্ণ, গোত্র নির্বিশেষে সকল নাগরিকের অধিকার সমুন্নত রাখতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় একটি সুস্থ সংস্কৃতি গড়ে তুলতে আপনি সর্বদা সহায়ক ভূমিকা পালন করেছেন, করবেন। আমরা মনে করি প্রশাসনসহ ব্যক্তিগত,বিভিন্ন নারী, মানবাধিকার ও উন্নয়ন সংগঠন, এলাকাবাসীসহ সকলের সম্মিলিত উদ্যোগে সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনা প্রতিরোধ ও প্রতিকারে কার্যকর ভূমিকা রাখা এবারও সম্ভব হবে। শারদীয় দূর্গোৎসব সকলের জন্য আনন্দময় হোক।

স্মারকলিপি প্রদানকালে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর মহিলা পরিষদের সহ-সভাপতি মিনতি ঘোষ, সহ-সাধারণ সম্পাদক মনোয়ারা সানু, অর্থ সম্পাদক রতœা মিত্র, আন্দোলন সম্পাদক গৌরী চক্রবর্তী সদস্য সুকলা কুন্ডু, রেহানা বেগম, সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস প্রতিরোধ কমিটির আহবায়ক তারিকুজ্জামান তারেক প্রমুখ।