তিন বান্ধবী ‘নিখোঁজ’: ৪ আসামির রিমান্ড চাইবে পুলিশ

তিন বান্ধবী ‘নিখোঁজ’: ৪ আসামির রিমান্ড চাইবে পুলিশ

জাতীয়

বাসা থেকে টাকা, স্বর্ণালংকার ও শিক্ষা সনদ নিয়ে ‘পালিয়ে যাওয়া’ রাজধানীর মিরপুরের তিন কলেজছাত্রীর সন্ধান মেলেনি এখনো। প্রাথমিকভাবে পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে তারা স্বেচ্ছায় ঘর ছেড়েছে। কিন্তু তাদের অবস্থান সম্পর্কে এখনো সুনির্দিষ্ট কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি। তবে এ ঘটনায় তরিকুল ও তার ভাই রাকিবুল এবং অয়ন নামে তিন জনকে আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে মিলেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য।

রাজধানীর মিরপুরের পল্লবী থেকে তিন কলেজছাত্রী ‘নিখোঁজের’ ঘটনায় করা মামলায় গ্রেফতার চার আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ড চাইবে পুলিশ।

রোববার দুপুরে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পল্লবী থানার এসআই সজিব খান যুগান্তরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, আসামিদের আজ দুপুরে আদালতে তোলা হবে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য প্রত্যেক আসামির সাত দিন করে রিমান্ড আবেদন করা হবে।

এখনও ওই তিন শিক্ষার্থীর কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। তাদের খোঁজে অভিযান চলছে বলে জানান এসআই সজিব।

এর আগে শনিবার রাতে নিখোঁজ শিক্ষার্থী কাজী দিলখুশ জান্নাত নিসার বোন আইনজীবী কাজী রওশন দিল আফরোজ মামলা করেন।

মামলার আসামিরা হলেন— মো. তরিকুল্লাহ (১৯), মো. রকিবুল্লাহ (২০), জিনিয়া ওরফে টিকটক জিনিয়া রোজ (১৮) ও শরফুদ্দিন আহম্মেদ অয়ন (১৮)। এ ছাড়া মামলায় আরও অজ্ঞাতনামা চারজনকে আসামি করা হয়েছে।

পরিবারের কাউকে কিছু না বলে গত বৃহস্পতিবার সকালে নিজ নিজ বাসা থেকে একযোগে বের হয় কাজী দিলখুশ জান্নাত নিসা, কানিজ ফাতেমা ও স্নেহা আক্তার। তারা সবাই দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী।

বের হওয়ার সময় সবাই বাসা থেকে কয়েক লাখ টাকা, গহনা, স্কুল সার্টিফিকেট ও দামি মোবাইল নিয়ে যায়।

নিসা মিরপুর গার্লস আইডিয়াল ল্যাবরেটরি ইনস্টিটিউট, স্নেহা পল্লবী ডিগ্রি কলেজ ও কানিজ দুয়ারিপাড়া কলেজের শিক্ষার্থী।

পরিবারের দাবি— বিদেশে নেওয়ার প্রলোভনে তাদের নিয়ে গেছে একটি নারী পাচারকারী চক্র। এ জন্য তারা বাসা থেকে অর্থ ও স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে পালিয়েছে।