পেঁয়াজ

হিলি স্থলবন্দরে পেঁয়াজের আমদানি বেড়েছে, কমেছে দাম

দিনাজপুর

দিনাজপুর সংবাদাতাঃ চাহিদার তুলনায় আমদানি বেশি ও অতিরিক্ত গরমের কারনে হিলি স্থলবন্দরে কমেছে আমদানিকৃত পেঁয়াজের দাম। বন্দরের পাইকারি বাজারে প্রকারভেদে কেজিতে ৪ থেকে ৫ টাকা কমে প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৪ থেকে ২৬ টাকা দরে । তবে নাসিকের পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকা কেজি দরে। বন্দরে পেঁয়াজসহ আমদানিকৃত সকল কাঁচা পণ্য দ্রুত ছাড়করণে সবধরনের সহযোগিতার আশ্বাস পানামা কর্তৃপক্ষের।

হিলি স্থলবন্দর আমদানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশিদ হারুন বলেন, দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম স্বাভাবিক রাখতে হিলি স্থলবন্দরের আমদানিকারকরা প্রায় ৫০ হাজার মেট্রিক পেঁয়াজ আমদানির আইপি খোলেন। প্রথম দিকে আমদানিকৃত পেঁয়াজ বোঝাই ট্রাক ১০ থেকে ১৫টি হিলি বন্দরে প্রবেশ করলেও চাহিদা বাড়ার সাথে সাথে বাড়তে থাকে পেঁয়াজ বোঝাই ট্রাকের সংখ্যা।

সম্প্রতি ভারত থেকে ৩০ থেকে ৩৫ ট্রাক পেঁয়াজ বন্দরে প্রবেশ করছে। আর এতে চাহিদার তুলনায় আমদানি বেশি। অপরদিকে অতিরিক্ত গরমের কারনে বন্দরে কমেছে ক্রেতা সমাগম। ফলে বন্দরের পাইকারী ও খুচরা বাজারে কমেছে আমদানিকৃত পণ্যটির দাম।

সপ্তাহের ব্যবধানে ৩০ টাকা কেজির পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৫ টাকা দরে। এতে বাজার স্থিতিশীল রয়েছে। তবে লোকসানের আশঙ্খা ব্যবসায়ীদের। এদিকে মোকামে পর্যাপ্ত পেঁয়াজের সরবরাহ থাকায় কম পরিমাণে পেঁয়াজ কিনছেন বন্দরের পাইকাররা।

হিলি পানামা পোটের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন প্রতাব মল্লিক বলেন বন্দরে পেঁয়াজসহ আমদানিকৃত সকল কাঁচা পণ্য দ্রুত ছাড়করণে সবধরনের সহযোগিতার আশ্বাস পানামা কর্তৃপক্ষের। চলতি মাসের গেলো ১ সেপ্টেম্বর থেকে ২১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১০ হাজার ৯০৮ মেট্টিক টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে এই বন্দর দিয়ে। সরকার রাজস্ব পেয়েছে ২ কোটি ৯৩ লাখ ২৫ হাজার ২৬৭ টাকা।