দিনাজপুরে করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত ১, শনাক্ত ৯

দিনাজপুর

দিনাজপুর সংবাদাতাঃ করোনাভাইরাস সংক্রমনে গত একদিনে ১৮২টি নমুনা পরীক্ষায় দিনাজপুর জেলায় ৯ জন আক্রান্ত হয়েছে এবং এ যাবত মৃতের মোট সংখ্যা ২৮৯ জন। শনাক্তের হার ৫.৪৯ শতাংশ। এ নিয়ে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১৪৫৯৬ জন আর জেলায় সক্রিয় রোগী ৭৩ জন। সদরে ৯০টি নমুনা পরীক্ষার মধ্যে ৮ জন করোনাভাইরাসে শনাক্ত এবং সংক্রমনের হার ২.২৩ শতাংশ।

এ যাবত সদরে কোভিড-১৯ এ মোট মৃত্যুর সংখ্যা ১৩৬ জন। গতকাল সিভিল সার্জন অফিসের সুত্র থেকে জানা যায় জেলায় করোনা উপসর্গ নিয়ে ১ জনের মৃত্যু হয়েছে। থামছে না করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুর মিছিল। জেলায় গত কয়েকদিনে সংক্রমনের হার উঠা-নামা থাকলেও বর্তমানে জেলায় ও সদরে সংক্রমনের হার স্থিতিশীল অবস্থায় রয়েছে। সরকারি স্বাস্থ্য বিধিনিষেধ যথাযথভাবে পালন করলে সংক্রমনের হার কমবে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন।

দিনাজপুর সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ জানান, গত ২৪ ঘন্টায় দিনাজপুরে ৯ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ৮ ও বীরগঞ্জ উপজেলায় ১ জন করোনা কোভিড-১৯ পজিটিভ।

দিনাজপুরে এ যাবত সর্বমোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৪৫৯৬ জন এর মধ্যে সদরে মোট সংক্রমনের সংখ্যা ৭৯৮৮ জন, বিরল ৯২৪, বিরামপুর ৫৯১, বীরগঞ্জ ৫৪৫, বোঁচাগঞ্জ ৬৮৩, চিরিরবন্দর ৫৭৭, ফুলবাড়ী ৬৮৪, ঘোড়াঘাট ১১৪, হাকিমপুর ৩০৬, কাহারোল ৩৪৬, খানাসামা ৩৯৪, নবাবগঞ্জ ৩৩১ ও পার্বতীপুর ১১১৩ জন ১৩টি উপজেলায়।

গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় করোনা কোভিড-১৯ আক্রান্ত ৯ জন রোগী সুস্থ হয়েছে। মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা ১৪২৩৪ জন। এ যাবত দিনাজপুরে কোভিড-১৯ আক্রান্ত সর্বমোট মৃত্যুর সংখ্যা ২৮৯ জন।

বর্তমানে ৫২ জন হোম আইসোলেশনে এবং জেলায় কোভিড-১৯ পজিটিভ রোগী ও করোনা উপসর্গ সম্বলিত রোগী মোট হাসপাতালে ভর্তি ৭১ জন রয়েছেন।

গত ২৪ ঘন্টায় দিনাজপুর থেকে প্রেরিত নমুনা সংগ্রহ ২২৫টি। গত ২৪ ঘন্টায় এম. আব্দুররহিম মেডিকেল কলেজ আরটি পিসিআর ল্যাব এবং ঢাকার ল্যাব থেকে ১৮২টি নমুনা পরীক্ষায় মধ্যে ৮টি করোনা কোভিড-১৯ পজিটিভ হয়েছে এবং অদ্যাবধি ল্যাবটেরিতে প্রেরিত নমুনার সংখ্যা ৮০০৫০টি আর অদ্যাবধি মোট নমুনার ফলাফল হয়েছে ৭৭০৭৩টি।

২৪ ঘন্টায় কোয়ারেনটাইন এর সংখ্যা ২৯ জন আর মোট কোয়ারেন্টাইন গ্রহন করেছে ৬০২০৭ জন। ২৪ ঘন্টায় কোয়ারেন্টাইন হতে ছাড়পত্র ২১ জন আর মোট কোয়ারেন্টাইন হতে ছাড়পত্র ৫৯৫৯৯ জন। বর্তমানে দিনাজপুরে আক্রান্ত অবস্থায় করোনা পজিটিভ রোগীর সংখ্যা ৭৩ জন এবং শনাক্তের হার ৫.৪৯%