১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের ফাইজারের টিকা দেওয়া হবে

১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের ফাইজারের টিকা দেওয়া হবে

জাতীয়

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছেন, ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের টিকা কার্যক্রমের আওতায় আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ বয়সী শিক্ষার্থীদের দেওয়া হবে ফাইজারের টিকা।
আজ শনিবার মানিকগঞ্জে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

জাহিদ মালেক বলেন, ‘আমরা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) অনুমোদন নেওয়ার চেষ্টা করছি। অনুমোদন পেলে ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সীদের টিকাদান কার্যক্রম শুরু হবে।’

জাহিদ মালেক আরও বলেন, ‘এখন আমরা ১৮ বছর থেকে তদূর্ধ্ব বয়সী নাগরিকদের টিকা দিচ্ছি। আমরা ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সীদের টিকা দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছি। এ সংখ্যাটি বিশাল। আমরা যেহেতু সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিচ্ছি, কাজেই ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সীদেরও টিকা দেব। তবে, এর আগে আমরা ডব্লিউএইচও’র অনুমোদন নেব।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যদিও ২২টি দেশ তাদের ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সী নাগরিকদের এরই মধ্যে টিকা দিচ্ছে। তারা এ ক্ষেত্রে তাদের নিজস্ব আইন ও প্রটোকল অনুসরণ করছে।’

দেশে টিকার সংকট নেই উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘চলতি মাসে চীন থেকে দুই কোটি ডোজ করোনার টিকা আসবে। এখন থেকে আগামী নভেম্বর মাস পর্যন্ত প্রতি সপ্তাহে ৫০ লাখ ডোজ করে আসবে। এসব টিকা পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে টিকা কার্যক্রম জোরদার করা হবে।