দিনাজপুর সরকারী মহিলা কলেজে প্রিয় বান্ধবীদের কাছে পেয়ে সেকি উল্লাস

দিনাজপুর সরকারী মহিলা কলেজে প্রিয় বান্ধবীদের কাছে পেয়ে সেকি উল্লাস

দিনাজপুর

দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দীর্ঘ দেড় বছর পর কলেজ ক্যাম্পাসে ফেরা। ক্লাস, আড্ডা, বান্ধবীদের হইহুল্লোড়ে যেন প্রাণ ফিরেছে কলেজ ক্যাম্পাসে। প্রিয় বান্ধবীদের কাছে পেয়ে সেকি উল্লাস। মুঠোফোনে বান্ধবীদের সঙ্গে হাজারো কথা হলেও সামনাসামনি দেখার অনুভূতিই ছিল অন্য রকম। আর তাই কথা যেন ফুরাতেই চাইছে না।

দীর্ঘ দেড় বছরের জমে থাকা কথার ফুলঝুড়ি যেন ঝরছিল সবারই মুখে। কুসল বিনিময় আর আড্ডার ফাঁকে চলছিল মুঠোফোনে সেলফি। দিনাজপুর সরকারী মহিলা কলেজ খোলার তৃতীয় দিন পুরো কলেজ ক্যাম্পাসের চিত্র ছিল এ রকম।

দিনাজপুর সরকারী মহিলা কলেজে প্রিয় বান্ধবীদের কাছে পেয়ে সেকি উল্লাস

দীর্ঘ দেড় বছর বন্ধ থাকার পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার তৃতীয় দিন ১৪ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার দিনাজপুর সরকারী মহিলা কলেজে গিয়ে দেখা যায় কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. ছাইয়েদুল হক স্বাস্থ্য বিধি শতভাগ নিশ্চিত রাখতে প্রতিটি ক্লাস রুম ও কলেজ ক্যাম্পাস ঘুরে ঘুরে দেখছেন। এ সময় লক্ষ্য করা যায় শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের মুখে আনন্দের ছাপ।

দীর্ঘ দেড় বছর বন্ধ ছিল কলেজ ক্যাম্পাস। দেড় বছর বন্ধ থাকার পর ১২ সেপ্টেম্বর থেকে খুলেছে কলেজ। প্রথম দিন থেকেই সরকারী নির্দেশনা মোতাবেক স্বাস্থ্যবিধি মেনেই কলেজ ক্যাম্পাসে আসেন শিক্ষার্থীরা। ক্লাসের পাশাপাশি শিক্ষার্থীরা কলেজ ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে মেতে ওঠেন আড্ডা ও খোশ গল্পে।

দিনাজপুর সরকারী মহিলা কলেজে প্রিয় বান্ধবীদের কাছে পেয়ে সেকি উল্লাস

দিনাজপুর সরকারী মহিলা কলেজের ভারপ্রাপ্ত প্রফেসর মো. ছাইয়েদুল হক জানান, সরকার যেভাবে নির্দেশনা দিয়েছেন, ঠিক সেই ভাবেই দিনাজপুর সরকারী মহিলা কলেজে স্বাস্থ্য বিধি নিশ্চিত করেই শিক্ষার্থীদের কলেজ ক্যাম্পাসে প্রবেশ ও শ্রেণিকক্ষে পাঠদান কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

দিনাজপুরে করোনা’র মহামারি কারণে প্রায় দেড় বছর বন্ধ থাকা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো সরকারি নির্দেশনা মেনে পাঠদান কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য